এই শিশুদের দায়িত্ব কে নেবে?

'প্রতিটি শিশুর পুষ্টিকর খাবার, পরিধান করার মতো পোশাক, অসুস্থতায় চিকিৎসা আর স্নেহ মমতায় বড় হওয়ার কথা। পরিবার বা অন্য কারো আয় রোজগারের হাতিয়ার হবার কথা নয় তার। তাহলে কে বা কারা এমন আয়োজন করে এই শিশুকে দিয়ে ভিক্ষা করাচ্ছে?'
এই শিশুদের দায়িত্ব কে নেবে?

ঝুড়ির ভেতরে ঢেকে রাখা একটি ছোট মাইকে অনবরত বেজে চলছে একটি শিশুর আকুতি, "আমি প্রতিবন্ধী, আমাকে সাহায্য করেন....।" আর ঝুড়িটির পাশে বসে পথচারীর দিকে হাত বাড়িয়ে ভিক্ষা চাইছে একটি শিশু।

চিত্রটি হ্যালো ডট বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের ক্যামেরায় ধরা পড়ে রাজধানীর কামাল আতাতুর্ক এভিনিউর ফুটপাতে। শিশুটির আশেপাশে কেউ নেই। সেখান থেকে একটু দূরে একজন নারী বসে আছেন। তিনি জানান এ শিশুটি তার কেউ নন, চেনেন না। আশেপাশে কাউকে পাওয়া গেল না যার সঙ্গে এই ‍শিশুটির কোনো সম্পর্ক আছে। শিশুটিও কিছু বলতে পারে না। কেবল ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে থাকে। তাহলে কোথা থেকে এল এই শিশুটি?

প্রতিটি শিশুর পুষ্টিকর খাবার, পরিধান করার মতো পোশাক, অসুস্থতায় চিকিৎসা আর স্নেহ মমতায় বড় হওয়ার কথা। পরিবার বা অন্য কারো আয় রোজগারের হাতিয়ার হবার কথা নয় তার। তাহলে কে বা কারা এমন আয়োজন করে এই শিশুকে দিয়ে ভিক্ষা করাচ্ছে? মানসিক ভাবে কতটা হীনতা নিয়ে বড় হচ্ছে এই শিশুটি? মানুষের তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য, খারাপ ব্যবহার কি তাকে ভালো মানুষ হয়ে গড়ে উঠতে দেবে? এই শিশুদের রক্ষা করা কিংবা সুন্দর ভাবে বড় করে তোলার দায়িত্বটি আসলে কার?

দেশ জুড়েই এমন অনেক দৃশ্যের দেখা মেলে। তবুও কারো টনক নড়ে না কেন?

প্রতিবেদকের বয়স: ১৫। জেলা: ঢাকা।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.

সর্বাধিক পঠিত

No stories found.