'অভাবে মেয়েকে বাল্যবিয়ে দেই'

'বিয়ের পর কিশোরীকে পড়াশোনার খরচ দেননি দিনমজুর স্বামী। বাধ্য হয়ে বাবার বাড়ি ফিরে এসে পড়াশোনা করে শুরু করে বলে সে জানায়।'
'অভাবে মেয়েকে বাল্যবিয়ে দেই'

বাল্যবিয়ের শিকার হয়ে পড়াশোনা থেমে যায় কুড়িগ্রাম সদরের কাঁঠালবাড়ি ইউনিয়নের এক কিশোরীর। বাবার বাড়িতে এসে পুনরায় পড়াশোনা শুরু করে সে। অংশ নেয় এবারের এসএসসি পরীক্ষায়।

জানা যায়, এই কিশোরীর বাবা ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। মা কাজ করেন কৃষি জমিতে। অভাবের কারণে কিছুদিন আগে ১৫ বছরের মেয়েকে বিয়ে দেন তারা।

বিয়ের পর কিশোরীকে পড়াশোনার খরচ দেননি দিনমজুর স্বামী। বাধ্য হয়ে বাবার বাড়ি ফিরে এসে পড়াশোনা করে শুরু করে বলে সে জানায়।

হ্যালোকে এই কিশোরী বলে, “আমার এস এস সি পরীক্ষা ছিল। শ্বশুরবাড়ি থেকে পড়াশোনার কোনো খরচ দেয় না। তাই আমি বাবার বাড়িতে এসে পড়াশোনা শুরু করি।”

এই কিশোরীর মা হ্যালোকে জানান, অভাবের কারণেই তারা অল্প বয়সে মেয়েকে বিয়ে দেন।

প্রতিবেদকের বয়স: ১৭। জেলা: কুড়িগ্রাম।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.

সর্বাধিক পঠিত

No stories found.
bdnews24
bangla.bdnews24.com