খবরাখবর

রাফসান নিঝুম (১৭), ঢাকা

Published: 2020-09-15 06:34:17.0 BdST Updated: 2020-09-15 06:36:08.0 BdST

রাজধানীর মুগদা-কমলাপুর এলাকায় বীরশ্রেষ্ঠ শহিদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম প্রাঙ্গনে প্রতি শনিবার বসে কবুতর বেচাকেনার হাট।

স্থানীয়দের কাছে এই মাঠটি কমলাপুর স্টেডিয়াম বা মুগদা স্টেডিয়াম নামেই পরিচিত।

বেশ কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় প্রতি শনিবার এই হাটে আসেন বিভিন্ন এলাকার মানুষেরা। কবুতর কেনা ও বিক্রির এ হাটে বাইরের বাজারের চেয়ে অনেক কম মূল্যে কবুতর পাওয়া যায়। 

হাটে বিভিন্ন জাতের অসংখ্য কবুতর দেখা যায়। ঢাকা ও ঢাকার বাইরে থেকে অনেক ক্রেতা-বিক্রেতা এখানে নিয়মিত আসেন। তবে মহামারির জন্য ব্যবসায় এখন মন্দাবস্থা বিরাজ করছে বলে জানান বিক্রেতারা। 

কবুতর বিক্রেতা মো.  হোসেন আল-আমিন বলেন, "এখানে খুব ভালো মানের কবুতর খুব সস্তায়, ভালো দামে পাওয়া যায়। সুলভ মূল্যে পাওয়া যায়।  যে সব কবুতরের জোড়া অন্য হাটে পাঁচ হাজার পড়ব, এইসব হাটে পড়ব আড়াই থেকে তিন হাজার টাকা।"

কদমতলা এলাকা থেকে আসা ক্রেতা আজমল হোসেন বলেন, "আমার একটা মাদি কবুতর লাগবে। সেই

জন্য আসছি।" আনোয়ার হোসেন অবশ্য স্টেডিয়াম প্রাঙ্গনে বসা এই হাটে এসেছেন প্রথমবার। তবে তার অভিযোগ মধ্যস্থতাকারীদের জন্য দাম একটু বেশি হচ্ছে।

তিনি বলেন, "এক জোড়া কবুতর কেনার ইচ্ছা ছিল। দেখতেছি যদি পাই, মোটামুটি পছন্দ হলে নিয়ে নিব।"

এই হাটেই গিরিবাজ কবুতর বিক্রি করতে এসেছেন রহিম মিয়া নামের এক ব্যক্তি। হ্যালোকে তিনি বলেন, "আমার কাছে ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে দুই হাজার মূল্যের কবুতর আছে।"

রহিম মিয়া আরও জানান, করোনার জন্য ব্যবসায় এখন মন্দাবস্থা বিরাজ করছে। সেই সাথে কিছুটা আর্থিক ক্ষতির মুখেও পড়তে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের।

তুমি কি জান, সপ্তাহে সাত দিন ২৪ ঘণ্টা হ্যালো শুধুই শিশুদের কথা বলে? বয়স যদি ১৮’র কম হয়, তাহলে তুমিও হতে পার শিশু সাংবাদিক! তাহলে আর কী, নিজের তৈরি প্রতিবেদন, ভিডিও প্রতিবেদন, ভ্রমণকাহিনী, জীবনের স্মরণীয় ঘটনা, আঁকা ও তোলা ছবি, বুক বা সিনেমা রিভিউ পাঠাতে পার আমাদের কাছে। লিখতে পার প্রিয় সাহিত্যিক ও ব্যক্তিত্বকে নিয়েও। এমনকি নিজের কথা লিখতেও নেই কোনো মানা।

লেখা ও ভিডিও পাঠানোর ঠিকানা hello@bdnews24.com। সঙ্গে নিজের নাম, ফোন নম্বর, জেলার নাম ও ছবি দিতে ভুলবে না কিন্তু। তবে তার আগে রেজিস্ট্রেশন করতে ক্লিক করো reg.hello.bdnews24.com

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত