খবরাখবর

শেখ নাসির উদ্দিন (১৭),  টাঙ্গাইল

Published: 2020-07-13 15:28:15.0 BdST Updated: 2020-07-13 15:32:56.0 BdST

বন্যার পানির প্রবল চাপে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ধল্যা-বিলপাড়া অভ্যন্তরীণ সড়ক ভেঙে ১৫ গ্রামের মানুষসহ পার্শ্ববর্তী বাসাইল উপজেলার সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

গত শুক্রবার দুপুরে সড়কটির আদাবাড়ী পশ্চিমপাড়া নামক স্থানে এই ভাঙনের শুরু হলে রাতের মধ্যে সড়কটির ৭০-৮০ ফুট ভেঙে যায়।

স্থানীয়রা জানান, ধল্যা-বিলপাড়ার সড়ক দিয়ে জেলার বাসাইল ও মির্জাপুর সদরের সরাসরি যোগাযোগের একমাত্র রাস্তা। এছাড়া আদাবাড়ী, ভাতকুড়া গ্রামনাহালী, বিলপাড়া, ছাওয়ালীসহ অন্তত ১৫ গ্রামের মানুষ এই রাস্তা দিয়ে উপজেলা সদরে যাতায়াত করে।

এলাকাবাসী জানিয়েছে, গত তিনমাস আগে সড়কটি স্থানীয় প্রকৌশল অধিদপ্তর সংস্কার করে। সড়কটির কয়েকটি স্থানে পানি চলাচলের জায়গা থাকলেও সেখানে নতুন বাড়ি-ঘর নির্মাণ করে পানি প্রবেশের পথগুলো বন্ধ করা হয়েছে। তাছাড়া যেখানে রাস্তাটি ভেঙে গেছে সেখানে একটি কালভার্ট ছিল। রাস্তা সংস্কারের সময় স্থানীয় কিছু লোকজন কালভার্টের মুখ আটকে দেয়। এতে করে বন্যার পানি চলাচলের সব মুখ বন্ধ হয়ে পড়ায় পানির প্রবল চাপে সড়কের আদাবাড়ী পশ্চিমপাড়ার ওই অংশ ভেঙে যায়। এবং রাতের মধ্যে ওই এলাকা সম্পূর্ণ প্লাাবিত হয়ে পড়ে। হুমকির মুখে রয়েছে আদাবাড়ি কবরস্থানের দেয়ালও। দুর্ভোগে পড়া মানুষগুলো এখন যাতায়াতে নৌকা ব্যবহার করছে।

মহেড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাদশা মিয়া বলেন, "সড়কটি নির্মাণ কাজ ছিল অত্যন্ত নিম্নমানের। পানি প্রবাহের পথগুলো স্থানীয় লোকজন বাড়িঘর বানিয়ে বন্ধ করে দিয়েছে। তাছাড়া কালভার্টের মুখও স্থানীয়রা বন্ধ করে দেয়ায় পানির প্রবল চাপে রাস্তাটি ভেঙে গেছে।"

নির্মাণ কাজ নিয়ে অভিযোগ অস্বীকার করে মির্জাপুর উপজেলা প্রকৌশলী মো. আরিফুর রহমান বলেন, "বর্ষার পানির চাপের সাথে কাজের নিম্নমানের কোনো সম্পর্ক নেই। দ্রুত সময়ের মধ্যে ভাঙন কবলিত এলাকায় লোক পাঠানো হবে।"

 

তুমি কি জান, সপ্তাহে সাত দিন ২৪ ঘণ্টা হ্যালো শুধুই শিশুদের কথা বলে? বয়স যদি ১৮’র কম হয়, তাহলে তুমিও হতে পার শিশু সাংবাদিক! তাহলে আর কী, নিজের তৈরি প্রতিবেদন, ভিডিও প্রতিবেদন, ভ্রমণকাহিনী, জীবনের স্মরণীয় ঘটনা, আঁকা ও তোলা ছবি, বুক বা সিনেমা রিভিউ পাঠাতে পার আমাদের কাছে। লিখতে পার প্রিয় সাহিত্যিক ও ব্যক্তিত্বকে নিয়েও। এমনকি নিজের কথা লিখতেও নেই কোনো মানা।

লেখা ও ভিডিও পাঠানোর ঠিকানা hello@bdnews24.com। সঙ্গে নিজের নাম, ফোন নম্বর, জেলার নাম ও ছবি দিতে ভুলবে না কিন্তু। তবে তার আগে রেজিস্ট্রেশন করতে ক্লিক করো reg.hello.bdnews24.com

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত