স্টেশনে মায়ের লাশ, জাগানোর চেষ্টায় অবুঝ শিশু - hello
বিশ্বজুড়ে

আজমল তানজীম সাকির, মো. মামুন (১৬), ঢাকা

Published: 2020-05-28 18:10:13.0 BdST Updated: 2020-05-28 18:10:13.0 BdST

ছবি: এনডিটিভি
রেল স্টেশনে পড়ে  আছে এক নারীর মৃত দেহ, পাশেই অবুঝ সন্তান তাকে জাগানোর ব্যর্থ চেষ্টা করে যাচ্ছে।  

এমন এক মর্মান্তিক দৃশ্য ছড়িয়ে পড়েছে ইন্টারনেটে।

ঘটনাটি ভারতের বিহারের।

দেশটিতে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বেশ বিপাকে পড়তে হয়েছে বিভিন্ন শহরে আটকে পড়া শ্রমিকদের। এই নারীও গুজরাটে কাজ করতেন। 

গুজরাটে আটকে পড়া এ শ্রমিক ট্রেনে করে বাড়ি ফেরার পথে গরমে ও পানির তেষ্টায় অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর বিহারের মুজাফফরপুরে মারা যান তিনি। সেখানেই তাকে ডেকে তুলতে চাচ্ছিল ছোট্ট শিশুটি। মায়ের কাপড় ও ঢেকে রাখা আবরণ কাপড় ধরে টানছিল সে। 

ছোট্ট শিশুর হয়তো ধারণা তার মা ঘুমিয়েছে। তাই সে ঘুমিয়ে থাকা মাকে জাগাবে বলে ঠিক করেছে। কিন্তু মা যে অনন্ত ঘুমে তা বোঝার বয়স হয়নি তার।

মৃত নারীর পরিবার জানিয়েছে ক্ষুধা ও প্রচণ্ড গরমের কারণেই এ মৃত্যু হয়েছে। 

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবর বলছে সম্প্রতি এই স্টেশনে দুই বছর বয়সী একটি শিশুও মারা গেছে। 

লকডাউনের মধ্যে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায় আটকে পড়া শ্রমিকেরা। বিবিসির সংবাদ অনুযায়ী দিল্লি, মুম্বাই, গুজরাট বা দক্ষিণ ভারতে কাজ করতে যাওয়া কয়েক লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিক সেইসব জায়গায় আটকে পড়েছেন। অর্থের অভাবে কষ্টে দিনাতিপাত করতে হচ্ছে তাদের। 

শ্রমিকদের নিজেদের রাজ্যে ফেরাতে পহেলা মে থেকে শ্রমিক স্পেশাল' নামে বিশেষ ট্রেন চালু করেছে ভারতীয় রেল। এর আগে হেঁটে বাড়ির পথ ধরেছিলেন অনেক শ্রমিক। সেই পথ পার করতে গিয়েও অনেকে প্রাণ হারিয়েছিলেন।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত
  • হীনমন্য এই আমাকে আত্মবিশ্বাসী করেছে হ্যালো

    ছোটবেলায় আমি পড়াশোনায় খুব দুর্বল ছিলাম। বন্ধুরাও আমার সাথে তেমন একটা মিশতে চাইত না।

  • আতিকের অবাক সাইকেল (ভিডিওসহ)

    বন্যা দুর্গত এলাকার মানুষের কথা চিন্তা করে ডুবে যাওয়া রাস্তাতেও চলাচলের জন্য নয় ফুট উঁচু সাইকেল বানিয়েছে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের বানিয়ারা গ্রামের সৈয়দ আতিক উল্লাহ।

  • চবির ‘সুমনা আর্ট গ্যালারি’ (ভিডিওসহ)

    চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস প্রাঙ্গনে রয়েছে সাইদ ভাইয়ের চায়ের দোকান। যেখানে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের আড্ডা-গল্প জমে ওঠে। সেই দোকানেই বাবাকে সাহায্য করে ফাহিমা আক্তার সুমনা নামের এক কিশোরী।