বিশ্বজুড়ে

রাফসান নিঝুম (১৭), ঢাকা

Published: 2019-11-04 19:20:38.0 BdST Updated: 2019-11-04 19:20:38.0 BdST

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লীতে বর্তমানে প্রচুর বায়ুদূষণ হচ্ছে। যার কারণে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত দিল্লীর সকল বিদ্যালয় বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

দিল্লীর এই বায়ু দূষণ মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে সরকার। সরকারি ও বেসরকারি স্কুলগুলোতে ৫০ লাখ মাস্ক বিতরণ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

গত পহেলা নভেম্বর শুক্রবার স্কুল শিক্ষার্থীদের মধ্যে দূষণরোধী মাস্ক বিতরণ করছেন তিনি৷

টুইটারে এক টুইট বার্তার মাধ্যমে তিনি জানান, প্রতিবেশী শহরগুলোতে খাদ্যশস্য পোড়ানোর ধোয়ায় দিল্লী এখন গ্যাস চেম্বারে পরিণত হয়েছে।

কেজরিওয়াল স্কুল শিক্ষার্থীদের হরিয়ানা ও পাঞ্জাবের  মুখ্যমন্ত্রীর কাছে চিঠি লিখতেও পরামর্শ দিয়েছেন।

তিনি বলেন, "তোমরা ক্যাপ্টেন আঙ্কেল ও খাট্টার আঙ্কেলের কাছে চিঠি লিখতে পারো। বলতে পারো, ‘দয়া করে আমাদের স্বাস্থ্যের বিষয়টি নিয়ে ভাবুন।"

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং ও হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খাট্টারের নাম উল্লেখ করে এ কথা বলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম থেকে পাওয়া তথ্যনুসারে, বাতাসের গুণমান সূচক বা এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স (একিউআই) ০ থেকে ৫০-এর মধ্যে থাকলে তা স্বাস্থ্যের পক্ষে অনুকূল বলে ধরা হয়।

কিন্তু এবার ভারতে সদ্য হয়ে যাওয়া দীপাবলি উৎসবে বাজি ফোটানোর কারণে বিষাক্ত গ্যাসে দিল্লি এবং নয়ডার গড় একিউআই বেড়ে ৩০৬ ও ৩৫৬ তে দাঁড়িয়েছিল। শুক্রবার রাজধানীতে তা ৫০০ ছাড়িয়েছে। দূষণের পরিভাষায় একে বলা হচ্ছে ‘সিভিয়ার প্লাস’। একারণেই ঘোষণা করা হয়েছে পাবলিক হেলথ্‌ এমার্জেন্সি।

ভারতের পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ বলেছে, দূষণের এই ভয়াবহ মাত্র সবার স্বাস্থ্যেই বিশেষ করে শিশুদের স্বাস্থ্যের ওপর মারাত্মক প্রভাব ফেলতে পারে। একথা বিবেচনা করেই জনস্বাস্থ্যে জরুরি অবস্থা ঘোষণার মতো পদক্ষেপ নিতে হচ্ছে।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত