অন্য চোখে

আশিকুজ্জামান আশিক (১৬), রাজশাহী

Published: 2020-01-18 16:45:14.0 BdST Updated: 2020-01-18 16:45:14.0 BdST

চারণ সাংবাদিক মোনাজাতউদ্দিনের জন্মদিন শনিবার।

১৯৪৫ সালের ১৮ জানুয়ারি রংপুর জেলার গঙ্গাচড়া উপজেলার মরনিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। রংপুর কৈলাশরণ স্কুল থেকে মাধ্যমিক এবং রংপুর কারমাইকেল কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন। বিএ পাস করে তিনি পেশাগত জীবন শুরু করেন।

ষাটের দশকে বগুড়া থেকে প্রকাশিত ‘বুলেটিনের’ মাধ্যমে সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি তার। দৈনিক আওয়াজ, দৈনিক আজাদ, দৈনিক সংবাদ ও সর্বশেষে দৈনিক জনকণ্ঠে কাজ করেছেন। তার কাজের ক্ষেত্র ছিল বাংলার মেঠোপথ, প্রান্তিক জনগোষ্ঠী।

সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে ব্যাপক প্রয়াসী ছিলেন মোনাজাতউদ্দিন। গ্রামের পথে পথে হেঁটে দীর্ঘ জীবনে সঞ্চয় করেছেন অনেক অভিজ্ঞতা। এসব নিয়ে বইও হয়েছে। পাশাপাশি লিখেছেন জীবনের অভিজ্ঞতা সমৃদ্ধ নানা ঘটনা।

তার উল্লেখযোগ্য বইগুলো পথ থেকে পথে, সংবাদ নেপথ্য, কানসোনার মুখ, পায়রাবন্দের শেকড় সংবাদ, নিজস্ব রিপোর্ট, ছোট ছোট গল্প, অনুসন্ধানী রিপোর্ট, গ্রামীণ পর্যায়, চিলমারীর এক যুগ ইত্যাদি

পাশাপাশি তিনি অনেক সমাজসেবামূলক কাজ করেছেন। গ্রামীণ এলাকায় কুসংস্কার দূর করতে তরুণদের নিয়ে সংগঠন করেছেন। কখনো তাদের নিয়ে নাটক তৈরি করেছেন, কখনো উৎসাহ দিয়েছেন সাংস্কৃতিক আন্দোলন গড়ে তোলতে। তিনি নিজেও ছিলেন একজন গীতিকার ও নাট্যকার। রংপুর বেতারে তিনি নিয়মিত কাজ করতেন।

কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ১৯৯৭ সালে তাকে মরণোত্তর একুশে পদক দেওয়া হয়। এছাড়া তিনি ১৯৮৭ সালে ফিলিপস পুরস্কার, ১৯৭৭ সালে রংপুর নাট্য সমিতি সম্মাননা, ১৯৮৪ সালে পেয়েছেন সাংবাদিক জহুর হোসেন চৌধুরী স্মৃতি পদক আরও একাধিক পুরস্কার পেয়েছেন।

১৯৯৫ সালের ২৯ ডিসেম্বর ফুলছড়ি থানাধীন যমুনা নদীতে কালাসোনার ড্রেজিং পয়েন্টে দুইটি নৌকাডুবির তথ্যানুসন্ধান করতেই অসুস্থ শরীর নিয়ে যাত্রা শুরু করেন গাইবান্ধায়। যাবার পথে ‘শেরেবাংলা’ নামক ফেরিতেই তিনি দুর্ঘটনায় পড়েন। ফেরির ছাদ থেকে হঠাৎ করেই পানিতে পড়ে যান। স্থানীয় নৌকার মাঝিরা দেহ তাৎক্ষনিকভাবে উদ্ধার করতে পারলেও বাঁচানো যায়নি তাকে।

ধারণা করা হয়, পানিতে পড়ার সাথে সাথেই তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। ৩০ ডিসেম্বর তাকে রংপুর শহরের মুন্সীপাড়ায় দাফন করা হয়।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত