অন্য চোখে

দ্বীন মোহাম্মাদ সাব্বির (১৬), সিরাজগঞ্জ

Published: 2018-12-01 20:44:00.0 BdST Updated: 2018-12-01 20:44:00.0 BdST

তারামন বিবি, একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযুদ্ধে তার অসামান্য অবদান ও অসীম সাহসিকতার জন্য ১৯৭৩ সালে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার তাকে বীর প্রতীক খেতাব দেয়।

সবাই তাকে তারামন বিবি নামে চিনলেও তার নাম মোছাম্মৎ তারামন বেগম।

তারামন বিবি ১৯৫৭ সালে বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা কুড়িগ্রামের চর রাজিবপুর উপজেলার শংকর মাধবপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম আবদুস সোহবান এবং মা কুলসুম বিবি।

মুক্তিযুদ্ধের সময় তারামন বিবি ১৩/১৪ বছরের কিশোরী। ঠিক তখনই তিনি বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন।

মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে তিনি ১১ নং সেক্টরর কুড়িগ্রাম জেলার শংকর মাধবপুর গ্রামের মুক্তিবাহিনীর একটি ক্যাম্পে যোগ দেন। ক্যাম্পে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য খাবার তৈরি, তাদের অস্ত্র লুকিয়ে রাখা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের সেবা করা, কৌশলে পাকিস্তানি বাহিনীর গোপন তথ্য সংগ্রহ করা ছিল তার কাজ।

এসময় মুহিব হাবিলদার নামে এক মুক্তিযোদ্ধা তারামনের সাহস ও শক্তির পরিচয় পেয়ে তাকে সম্মুখযুদ্ধে অংশ নেওয়ার জন্য উৎসাহিত করেন। পরবর্তিতে নিজ হাতে তারামন বিবিকে অস্ত্র চালনা শেখান।

প্রশিক্ষণ নিয়ে তাদের সাথে ছোটবড় অনেক যুদ্ধে এবং হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মুখযুদ্ধে অস্ত্র হাতে অংশগ্রহণ করেন ও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

স্বাধীনতা লাভের পর ১৯৭৩ সালে তৎকালীন বাংলাদেশ সরকার মুক্তিযুদ্ধা তারামন বিবিকে তার সাহসীকতা ও বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য “বীর প্রতীক” উপাধিতে দেয়।

এর ২২ বছর পর ১৯৯৫ সালে কুড়িগ্রামের রাজীবপুর কলেজের অধ্যাপক আবদুস সবুর ফারুকী'র সহায়তায় ময়মনসিংহের আনন্দমোহন কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ও গবেষক বিমল কান্তি দে এই আড়ালে থাকা মহান যোদ্ধাকে খুঁজে বের করেন।

এরপর নারী অধিকার নিয়ে কাজ করে এমন কয়েকটি সংগঠন তাকে ঢাকায় নিয়ে আসে। সেই সময় তাকে নিয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রচুর লেখালেখি হয়। অবশেষে ১৯৯৫ সালের ১৯ ডিসেম্বর তৎকালীন বাংলাদেশ সরকার একটি অনাড়ম্বরপূর্ণ পরিবেশে আনুষ্ঠানিকভাবে তারামন বিবিকে বীরত্বের পুরস্কার তুলে দেন।

এই কিশোরী বীর প্রতিক তারামন বিবি বিজয়ের মাসে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। তার বীরত্ব, অসামান্য সাহসীকতা এবং দেশপ্রেম তাকে আজীবন বাঁচিয়ে রাখবে আমাদের মাঝে।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত