অন্য চোখে

সাদিক ইভান (১৭), ঢাকা

Published: 2017-12-11 21:13:35.0 BdST Updated: 2017-12-11 21:53:16.0 BdST

সংগৃহীত
আমাদের দেশে শিশু-বুড়ো সবাই কমবেশি অপুষ্টিতে ভোগে। এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা। কিন্তু পাশাপাশি শিশু-কিশোরদের মোটা হওয়া বা ওবিসিটির সংকটও রয়েছে এ দেশেই।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা’র অসংক্রামক রোগ পর্যবেক্ষণ ও প্রতিরোধ বিষয়ক কর্মসূচি সমন্বয়ক ডা. ফিওনা বুল বলেছেন, কম পুষ্টিকর ও বেশি ক্যালরি সমৃদ্ধ, সস্তা ও প্রক্রিয়াজাত খাবারের ব্যবহার কমিয়ে আনতে সরকারকে উদ্যোগী হতে হবে।

শিশুদের বসে থেকে কম্পিউটার, টিভি ও স্মার্টফোনে সময় কাটানো কমিয়ে আনতে হবে। তার বদলে খেলাধুলাসহ এমন বিনোদনের ব্যবস্থা করতে হবে যাতে শরীরের সক্রিয়তার সুযোগ তৈরি হয়।

চলতি বছরের অক্টোবরে এ বিষয়ে গবেষণা নিয়ে ‘ল্যানসেট’ (Lancet) নামে যুক্তরাজ্যের মেডিকেল জার্নাল, একটি নিবন্ধ প্রকাশ করেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও লন্ডনের ইমপেরিয়াল কলেজ যৌথভাবে গবেষণাটি করেছে।  

যেখানে বলা হয়েছে, বিশ্বে শিশু ও কিশোরদের শারীরিক স্থূলতা বা ওবেসিটির হার গত চার দশকে দশগুণ বেড়েছে।

সেখানে বাংলাদেশ সম্পর্কে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালে ছেলেদের মধ্যে স্থূলতার হার ছিল তিন ভাগ, যা ১৯৭৫ সালে ছিল শূন্য দশমিক শূন্য তিন ভাগ আর মেয়েদের শূন্য থেকে বেড়ে হয়েছে শতকরা দুই দশমিক তিন ভাগ।

অস্বাভাবিক মোটা হওয়ার পেছনে সস্তা এবং মোটা করে দেয় এমন খাবার সহজলভ্য হয়ে ওঠা, এসব খাবারের ব্যাপক প্রচারণা এবং সরকারের খাদ্য নীতিকে দায়ী করেছেন গবেষকরা।

তারা বলছেন, শীঘ্রই 'অপুষ্টি' শব্দটির স্থান দখল করে নেবে 'ওবিসিটি' শব্দটি।

ল্যানসেটে প্রকাশিত ওই নিবন্ধে আরও বলা হয়েছে, স্থূলতা নিয়ে বড় হতে থাকা শিশু-কিশোরদের হার বাড়তে থাকায় ভবিষ্যতে তাদের ডায়াবেটিসের মতো রোগের ঝুঁকি বাড়ছে।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত