অন্য চোখে

মেহেদী হাসান (১৬), বরিশাল

Published: 2017-06-12 21:03:29.0 BdST Updated: 2017-06-12 21:03:29.0 BdST

শিশুদের অধিকার, সুরক্ষা ও ঝুঁকিপূর্ণ শ্রম প্রতিরোধের লক্ষ্যে ১৯৮৯ সালের ২০ নভেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে ‘জাতিসংঘ শিশু অধিকার সনদ’ অনুমোদিত হয়।

১৯৯২ সালে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) শিশুশ্রম বন্ধ করতে কর্মসূচি হাতে নেয় এবং ২০০২ সালের ১২ জুন থেকে আইএলও বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে প্রতিবছর বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস হিসেবে পালন করে আসছে।

আইএলও-র তথ্যমতে বিশ্বে ৫ থেকে ১৪ বছরের মধ্যে মোট ১৬৮ কোটি শিশুশ্রমের সাথে জড়িত যাদের অধিকাংশই দিনের পুরো সময় কাজ করে,  তারা স্কুলে যায় না তাছাড়া খেলার জন্য সামান্য বা কোনও সময় নেই। এছাড়া চরম দারিদ্র্যের সঙ্গে যুদ্ধ করা এই শিশুরা বিভিন্ন বিপদের মধ্যেও কাজ করে থাকে।

আইএলও’র সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বের প্রতি ছয় শিশুর মধ্যে একজন শ্রমিক এবং প্রতি তিন শিশুশ্রমজীবীর মধ্যে দুজনই গৃহকর্মের সঙ্গে যুক্ত। বিশ্বের বেশির ভাগ দেশেই গৃহকর্মী শিশুদের সুরক্ষায় তেমন কোনো ব্যবস্থা নাই।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে শিশুশ্রম একটি প্রকট সমস্যা। বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ, বিপুল পরিমাণ দরিদ্র জনগোষ্ঠিকে জীবনের সাথে লড়াই করে বাঁচতে হয়, এদের মধ্যে শিশুদের সংখ্যা নেহাত কম নয়।

দরিদ্র পরিবারে বেড়ে ওঠা শিশুদের নিয়োগ করা হয় বিভিন্ন শ্রমে কারণ তারা শিশুদের শ্রমে নিয়োগ করা একটি লাভজনক প্রক্রিয়া মনে করেন। পাশাপাশি মালিকগোষ্ঠিও শিশুদের দ্বারা স্বল্পমূল্যে কাজ করানোর সুবিধা পান। এতে শিশুদের মৌলিক অধিকার ক্ষুণ্ন হয় প্রতিনিয়ত। 

সরকারি জরিপ অনুযায়ী বাংলাদেশে শিশুশ্রমজীবী সংখ্যা ৭৯ লাখ। এদের মধ্যে ৬৪ লাখ গ্রামাঞ্চলে এবং বাকী ১৫ লাখ শহরে বিভিন্ন শ্রমে নিয়োজিত। এসব শ্রমিকের মধ্যে ৪৫ লাখ শিশুশ্রমজীবী ঝুঁকিপূর্ণ কাজে জড়িত।

এদের মধ্যে ৩২ লাখ শিশু সপ্তাহে ১৪ ঘণ্টা এবং ১৩ লাখ শিশুশ্রমজীবী সপ্তাহে ৪৩ ঘণ্টা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করছে। এসব শিশুরা হোটেল-রেস্তোরাঁ, ট্যানারি, শিল্প কলকারখানা, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, জাহাজ ভাঙা,  পরিবহন সেক্টর, কৃষি, পশুপালন, গৃহকর্ম, নির্মাণ কর্ম, ইট ভাঙা, রিকশা-ভ্যান চালানো, লোহা কাটা এবং বাসাবাড়িতে কাজ করা ছাড়াও মাদক উৎপাদন, পাচার, পর্নোগ্রাফি, যৌনকর্মী ও দাসত্বের শৃঙ্খলে আজও সমাজের কিছু সুবিধাবাদী শ্রেণির কাছে বন্দি।

বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৮০টি দেশে নানান কর্মসূচির মাধ্যমে শিশুশ্রম বিরোধী জনসচেতনতা মূলক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস  পালিত হয়।

দিবসটির ২০১৭-র প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘দ্বন্দ্ব ও বিপর্যয়ের মধ্যে শিশুমজুরি থেকে শিশুদের রক্ষা করুন’।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত