আবার পর্দায় ফিরছে ‘ইচ্ছে ডানা’

“বাংলাদেশে মেয়েদের সামনে এমন একজন ইতিবাচক রোল মডেল থাকা জরুরি যাকে তারা অনুসরণ করতে পারে।”
ছবি: ইউনিসেফ

ছবি: ইউনিসেফ

অদম্য কিশোরীদের নিয়ে তৈরি সিরিজ নাটক ‘ইচ্ছে ডানা’ আবারও ছোট পর্দায় ফিরছে বুধবার থেকে।

মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় ও ইউনিসেফের যৌথভাবে নির্মাণ করা নাটকটির তৃতীয় সিজনে থাকছে মেয়েদের নিয়ে গঠিত তানজিলার ফুটবল দল ও তাদের চারপাশের গল্প। সমাজে প্রচলিত লিঙ্গভিত্তিক ধ্যানধারণা, বৈষম্য ও বিধিনিষেধের বেড়াজাল ভেঙে কিশোরী ফুটবল দলের মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর কাহিনী দেখানো হয়েছে এই নাটকে।

মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. হাসানুজ্জামান কল্লোল বলেন, “ইচ্ছেডানা সিরিজে এক কাল্পনিক গ্রামের নাম হাতমাথাল। এই গ্রামের কিশোরীরা শত চাপেও বাল্যবিয়ের কাছে মাথা নত করে না, যৌন হয়রানি প্রতিরোধ করে আর তাদের মাসিকের দিনগুলোতে স্বাস্থ্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের উপায় খুঁজে বের করে।”

ইউনিসেফ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, তৃতীয় সিজনের গল্পে মানসিক স্বাস্থ্য, মেয়েদের উত্যক্ত করা, হয়রানিমূলক আচরণ এবং কিশোর-কিশোরীদের উপর কোভিড-১৯ এর প্রভাবকে তুলে আনা হয়েছে। সিরিজটিতে মেয়েদের শিক্ষায় বিনিয়োগ এবং তরুণ জনগোষ্ঠী উৎসাহিত করে এমন নীতিমালার বিষয়ে কথা বলতে তাদের উৎসাহিত করার গুরুত্বও তুলে ধরা হয়েছে।

বাংলাদেশে ইউনিসেফের প্রতিনিধি শেলডন ইয়েট বলেন, “বাংলাদেশে অনেক মেয়ে ও নারী নেতিবাচক সামাজিক নিয়ম-কানুনের কারণে বৈষম্য ও সহিংসতার শিকার হয়। তবে এই অবস্থা পরিবর্তন সম্ভব। ইচ্ছে ডানা হলো মেয়েরা কী অর্জন করতে পারে তার একটি উদাহরণ।”

তানজিলা সিরিজটির প্রধান চরিত্র। এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রিয়াম অর্চি।
তিনি বলেন, “বাংলাদেশে মেয়েদের সামনে এমন একজন ইতিবাচক রোল মডেল থাকা জরুরি যাকে তারা অনুসরণ করতে পারে।”

সিরিজটিতে চার্জার নামক চরিত্রে অভিনয়কারী আরোশ খান বলেন, “ইচ্ছে ডানা দেখায় যে, ছেলেদের ভালোর জন্যও মেয়েদের ক্ষমতায়ন দরকার। আমরা একে অপরকে সাহায্য করার মধ্য দিয়ে নিজেদের প্রতিদ্বন্দ্বী না হয়ে বন্ধু হতে পারি।”

প্রতিবেদকের বয়স: ১৩। জেলা: ঢাকা।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.

সর্বাধিক পঠিত

No stories found.
bdnews24
bangla.bdnews24.com