খবরাখবর

মাহবুবা তাবাসসুম ইমা (১৬), ঢাকা

Published: 2020-01-18 15:55:27.0 BdST Updated: 2020-01-18 15:58:48.0 BdST

বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় এখন জনপ্রিয় হচ্ছে ফুল চাষ। এমনি একটি এলাকা সাভার উপজেলার বিরুলিইয়া। গত বিশ বছরে বিরুলিয়াতে জনপ্রিয় হয়েছে গোলাপ চাষ।

এখানকার অধিকাংশ জমিতে চাষ হচ্ছে লাল গোলাপ, তবে অল্প কয়েকটি জমিতে গ্ল্যাডিওলাসসহ অন্যান্য ফুল দেখতে পাওয়া যায়।

এই গ্রামের চাষিদের অভিমত গোলাপ চাষ সবজি বা অন্য ফসল উৎপাদনের চেয়ে বেশি লাভজনক।

গোলাপ চাষি আব্দুল ওহাব এই গ্রামে প্রথম গোলাপ চাষ শুরু করেন। ২০ থেকে ২৫ বছর আগে তিন থেকে চারশ চারা নিয়ে গোলাপ চাষ শুরু করেন তিনি। বর্তমানে তিন থেকে চার হাজার চারা রয়েছে তার।

আব্দুল ওহাব বলেন, “আমরা আগে সবজি চাষ করতাম পরে দেখলাম গোলাপে লাভ একটু বেশি।

“সবজি তো বছর বছর রিপারিং করা লাগে কিন্তু একটা গোলাপ গাছা বুইনা দিলে কমছে কম ১৫-২০ বছর লাস্টিং করে।”

তবে গোলাপের চাষ গ্রামব্যাপি ছড়িয়ে যাওয়ায় এখন আমদানি বেশি তাই গোলাপের দামও কিছুটা কম পাচ্ছেন বলে জানান চাষিরা। বর্তমানে প্রতিটি গোলাপের পাইকারি দাম দেড় টাকা থেকে চার টাকার মধ্যে উঠানামা করে। প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টায় গোলাপের বাজার বসে। 

শুধু এই গোলাপ চাষিরা নয় তাদের জমিতে শ্রমিক হিসেবে কাজ করেও জীবিকা নির্বাহ করছেন অনেকে।

গোলাপ বাগানে কাজ করেন রাকিব নামের একজন। তিনি বলেন, “আমি গত দশ বছর ধরে এখানে কাজ করি, ফুল কাটি, চারা করি, প্রতিদিন পাঁচশ টাকা করে হাজিরা পাই।”

গোলাপ চাষকে আরো উন্নত ও লাভজনক করতে কৃষি অধিদপ্তরের উপদেশ সহয়তা চান কৃষকরা।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত