খবরাখবর

রাফসান নিঝুম (১৭), ঢাকা

Published: 2020-01-11 18:37:02.0 BdST Updated: 2020-01-11 18:39:00.0 BdST

জেএসসি, জেডিসি, প্রাথমিক এবং ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর বিভিন্ন স্কুল ঘুরে দেখা গেছে শিশুদের উচ্ছ্বাস।

কয়েক জনের সঙ্গে কথা হয় হ্যালোর।

রাজধানীর মতিঝিল মডেল স্কুল এন্ড কলেজে ফলপ্রকাশের পরপরই শিক্ষার্থীরা আনন্দ-উৎসবে মেতে ওঠে। ঐ স্কুল থেকে জেএসসি পরীক্ষায় জিপিএ পাঁচ পাওয়া শিক্ষার্থী নুর কামাল বলে, “আমার খুব ভালো লাগছে। আমি সব সাবজেক্টে এ প্লাস পেয়েছি। অনেক কষ্টেই আমি এই ফলাফলটা পেয়েছি। এখন আমরা স্বপ্ন পূরণে আমি আরও এগিয়ে যেতে পারব।”

পিইসিতে জিপিএ পাঁচ অর্জন করা ছাত্র রাইয়ান শুভ বলে, “আমি সারাবছর ধরে পড়াশোনা করেছি। এখন জিপিএ পাঁচ পেয়েছি, খুবই ভালো লাগছে। আমার বাবা মাও অনেক খুশি।”

আবার মনের মতো ফলাফল না পাওয়ায় অনেককে কাঁদতেও দেখা যায় কয়েকজন শিক্ষার্থীকে। তবে, সন্তানদের সাফল্যে উচ্ছ্বাসিত অভিভাবকরা। তাদের যেন আনন্দের কমতি নেই।

একজন অভিভাবক বলেন, “এই খুশির কোনো সীমা নাই। সারা বছরের কষ্ট ভুলে গেলাম এই রেজাল্ট দেখে। শিক্ষকরা আমাদের বাচ্চাদের অনেক কেয়ার করেছে। এই ফলাফলের পেছনে তাদেরও অবদান রয়েছে। যদিও ক্লাস ফাইভেই বাচ্চাদের এত প্রেসার দেওয়া ঠিক না। আমরা এসএসসিতেও এত প্রেসার ফিল করিনি।”

৩১ ডিসেম্বর প্রকাশ করা হয় ফলাফল। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ফল প্রকাশের সময় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে দেখা যায় উত্তেজনা। কাঙ্খিত ফলাফল পেয়ে আনন্দে উল্লাস করতে দেখা যায় শিক্ষার্থীদের।

সারাদেশে জেএসসি-জেডিসিতে পাসের হার ছিল ৮৭ দশমিক ৯০ শতাংশ। গত বছরে যা ছিল ৮৫ দশমিক ৮৩ শতাংশ। সে তুলনায় এই হার এবার বেড়েছে দুই দশমিক শুন্য সাত শতাংশ। জেএসসি এবং জেডিসিতে এবার জিপিএ পাঁচের সংখ্যা ৭৮ হাজার ৪২৯। গত বছর জিপিএ পাঁচ পেয়েছিলেন ৬৮ হাজার ৯৫ জন শিক্ষার্থী। তাই গতবারের চেয়ে এবার জিপিএ পাঁচের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে ১০ হাজার ৩৩৪ জন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্রে, প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল প্রায় ২৯ লাখ শিক্ষার্থী। যার মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে ২৫ লাখ ৫৩ হাজার ২৬৭ জন এবং তিন লাখ ৫০ হাজার ৩৭১ জন ইবদেতায়ী সমাপনীতে অংশ নিয়েছিল।

অন্যদিকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষায় পাশের হার ৯৫ দশমিক ৫০ শতাংশ। গতবার প্রাথমিক সমাপনী পাশ করেছিল ৯৭ দশমিক ৫৯ শতাংশ। দুই দশমিক শূন্য নয় শতাংশ কমেছে পাশের হার। এবার জিপিএ পাঁচ পেয়েছে তিন লাখ ২৬ হাজার ৮৮ জন। গতবার এই সংখ্যা ছিল তিন লাখ ৬৮ হাজার একশত ৯৩। সে হিসাবে জিপিএ পাঁচের সংখ্যাও কমেছে।

ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী (ইবিটি) পরীক্ষায় পাশের হার ৯৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ। গতবার ইবতেদায়িতে এই হার ৯৭ দশমিক ৬৯ শতাংশ। এক দশমিক ৭৩ শতাংশ পাশের হার কমেছে। এবার জিপিএ পাঁচ পেয়েছে ১১ হাজার ৮৭৭ জন। গতবার এই সংখ্যা ছিল ১২ হাজার ২৬৮। এখানেও কমেছে জিপিএ পাঁচের সংখ্যা। 

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত