খবরাখবর

মো. আরিফ (১৪), ঢাকা

Published: 2019-09-16 13:59:19.0 BdST Updated: 2019-09-16 14:01:35.0 BdST

রাজধানীর বনানী থানার কড়াইল আদর্শ নগর বা কড়াইল বস্তির রাস্তাগুলোর সংস্কার না হওয়ায় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বসবাসকারীদের।

সম্প্রতি ভুক্তভোগীদের সঙ্গে কথা হয় হ্যালোর।

তারা জানান, ভাঙা রাস্তায় একটু বৃষ্টি হলেই হয় কাদা, তৈরি হয় নোংরা পরিবেশ। জানা যায়, প্রায় তিন লক্ষ মানুষের বসবাস এই বস্তিতে।

সরেজমিনে দেখা যায়, কড়াইল বস্তির মোশারফ বাজার রোড এবং বেলতলী রোড যাতায়াতের জন্য একেবারেই অনুপযোগী।

বস্তির এই রাস্তার দুই পাশ জুড়েই রয়েছে বিভিন্ন দোকানপাট। এখানে লেপ-তোষকের দোকান চালান মো. জহির নামের এক ব্যক্তি।

তিনি বলেন, “এখানে অনেক সমস্যা হয়। বৃষ্টিতে কাদা মাটি মাখামাখি হয় রাস্তায়, কাস্টমার আসে না। বেচা-কিনাও ঠিকমত হয় না।”

এই বস্তিতে দীর্ঘদীন যাবৎ বসবাস করেন মণি মন্ডল। তিনি বলেন, “অনেকদিন ধরেই রাস্তা খারাপ। বৃষ্টি হলে চলাচলে কষ্ট, পোলাপান স্কুলে নিতে কষ্ট, আমাগো বাসাবাড়ির পোলপান যে রাস্তার পাশে খেলাধুলা করব তাও করতে পারে না।

“সারাদিন ঘরের ভিতর পোলাপান বইয়া থাহে। কতক্ষণ পোলাপান ঘরে থাহে?”

রাস্তাঘাট বেহাল হওয়ায় স্কুলে যেতে বিপাকে পড়ছে শিশুরা।

পঞ্চম শ্রেণি পড়ুয়া আকাশ হাওলাদার বলে, “একটু বৃষ্টি হলেই কাদা হয়, এর মধ্যে হাঁটতে পারি না। জুতায় ময়লা হয় এবং জামা কাপড়েও ময়লা হয়।”

স্কুল শিক্ষার্থী ঊর্মি আক্তারকে প্রতিদিনই এই রাস্তা দিয়ে স্কুলে যেতে হয়। সে বলে, “আমরা তো সকালে স্কুলে যাই। তো মাঝে মধ্যে এত খারাপ অবস্থা থাকে যে আমরা যাইতে পারি না। কাদাতে আমাদের স্কুল ড্রেস মাইখা যায়, অনেক সময় রিকশাও থাকে না।”

সজল নামের আরেক শিশু বলে, “স্কুলে যাইতে আমাদের দেরী হয়ে যায়। এমনকি সেদিন আমি স্কুলে যাইতাছি, হঠাৎ কইরা পা পিছলা খায়া কাদায় পইড়া গেছি। পুরা শার্ট-প্যান্ট ময়লা হয়ে গেছে, স্কুলে আর যাওয়া হয়নি।”

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত