খবরাখবর

রুদ্র দেবনাথ শুভ (১৭), ঢাকা

Published: 2019-09-09 19:43:01.0 BdST Updated: 2019-09-09 19:52:06.0 BdST

রাজধানীর মুগদা এবং মানিকনগরের মাঝখান দিয়ে বয়ে যাওয়া সেগুনবাগিচা খালটি যেন ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে।

সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা যায়, ময়লার মাঝখান দিয়েই হেঁটে পারাপার হচ্ছে মানিকনগরের বাসিন্দারা। আবর্জনার পাশেই খেলাধুলা করছে শিশুরা।

তারা জানায়, প্রতিদিনই এখানে খেলে। খালের পাশেই খেলছিল সুমন, সিরাজ, মুস্তাফিজ ও ফিরোজ। এখানে মশা কামড়ায় কিনা জানতে চাইলে ওরা বলে, “মশা তো কামড়ায়। আমাদের খেলার মাঠ নেই কোনো।”

স্থানীয়দের অভিযোগ ময়লার ভ্যান নিয়মিত ময়লা নিতে না আসায় খালের পাশেই ময়লা ফেলতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। সুমন নামের এক ব্যক্তি বলেন, “টাকা দিয়েও আমরা ময়লা ফেলতে পারি না। ভ্যান আমাদের এখানে আসে না। কি করমু কন? বাধ্য হয়ে এখানে আমাদের ময়লা ফেলতে হয়।”

আয়েশা বলেন, “এটা তো ময়লা ফেলার জায়গা না। এটা পানি যাওয়ার জায়গা। মানুষের বোঝার ভুলে এখানে ময়লা ফেলে।”

ময়লা আবর্জনার স্তুপের পাশের এক কারখানা কর্মী বলেন, “আমরা ময়লা আবর্জনার পাশেই কাজ করি। সবাই ময়লা ফালায়। কাউরে বললে শুনে না।”

স্থানীয় বাসিন্দা জামান বলেন, “মশা কামড়ায়, মশার অত্যাচারে আমরা থাকতে পারি না।”

স্থানীয় কাউন্সিলর বি এম সিরাজুল ইসলামের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “খালের পাড়ে যেসব বাড়ি আছে তারা মাস শেষে টাকা দিয়ে ময়লা ফেলতে চায় না। এদের অনেকবার নোটিশ করেও কোনো কাজ হয় নাই।

“আর খাল যেহেতু ওয়াসার অন্তর্ভুক্ত সেহেতু এটা তাদের কাজ খাল পরিষ্কার করা। সিটি কর্পোরেশনের জবাবদিহিতা আছে। কিন্তু তাদের কোনো জবাবদিহিতা নাই। তারা যদি সিটি কর্পোরেশনের সাথে সম্মিলিতভাবে কাজ করে তাহলে দুর্ভোগ কমবে।”

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত