খবরাখবর

রাফসান নিঝুম (১৭), ঢাকা

Published: 2019-09-08 20:10:45.0 BdST Updated: 2019-09-08 20:10:45.0 BdST

টাকার অভাবে যে নারীরা স্যানিটারি প্যাড ব্যবহার করতে পারতেন না তাদের এক টাকায় স্যানেটারি প্যাড দিচ্ছে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।  পাঁচটি প্যাডের এক প্যাকেটের মূল্য ধরা হয়েছে পাঁচ টাকা।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, স্যানিটারি প্যাডের এক প্যাকেটের দাম কোম্পানি ভেদে ১০০ থেকে ১৬০টাকা।  এ সব প্যাকেটে পাঁচ থেকে আটটি প্যাড এবং দাম ভেদে বেশিও থাকে।

বিশেষ করে অসহায় ও দরিদ্র নারীদের ঋতুস্রাবকালীন প্রতিকূলতার কথা চিন্তা করে অল্প দামে বাসন্তী নামে স্যানিটারি প্যাড নিয়ে এসেছে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন নামের সংগঠনটি।

এ বিষয়ে ফাউন্ডেশনটির মিরপুর শাখার প্রকল্প সমন্বয়ক সালমান খান ইয়াসিন বলেন, “আসলে পিরিয়ডের ব্যাপারটা নারীদের জন্য একটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। কিন্ত কেন যেন এটা আমাদের দেশে ট্যাবু হিসেবে দেখা হয়। নারীরা কিন্ত তাদের এই সমস্যাটা শেয়ার করতে ভয় পায়। পিরিয়ডের সময়টাতে কীভাবে নিজেদের দেখাশোনা করতে হয় সে ব্যাপারে কিন্তু অনেকেই জানে না।

“আবার জানলেও দামের কারণে বা ক্রয় ক্ষমতার বাইরে থাকার কারণে প্যাড কিনতে পারে না। যার কারণে অনেকেই পিরিয়ডের সময় প্রাচীন পদ্ধতিতে কাপড় ব্যবহার করেন, যেটা স্বাস্থ্য সম্মত না।”

তিনি আরও বলেন, “তৃণমূল নারী ও কিশোরীদের এটি ব্যবহারে উৎসাহিত করি আমরা।

“আমরা এই প্যাড তৈরির কাঁচামাল চীন থেকে এনে অন্য প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে প্রসেস করি। এরপর স্বেচ্ছাসেবীরা সেসব কাঁচামাল ব্যবহার করে তৈরি করেন স্যানিটারি ন্যাপকিন।

“আমরা যতটা সম্ভব সচেতনতার সাথে এই প্যাড তৈরি করি।”

এই ফাউন্ডেশনের একজন স্বেচ্ছাসেবী ইসমত আরা পিয়া। তিনি বলেন,“ফেইসবুক পেইজ থেকে দেখেছি বাসন্তী প্যাড বিতরণ করা হবে। পাঁচ টাকায় বা ফ্রিতে দেওয়া হবে সুবিধা বঞ্চিত মেয়েদের মাঝে।

“এখানকার ভলেন্টিয়ারদের সহযোগিতা করতে আমি এখানে এসেছি। এটা খুবই ভালো কাজ, আমার খুবই ভালো লাগছে।”

উদ্যোক্তারা বলছেন, পাঁচ টাকা করে দাম ধরা হলেও তিন লাখ স্যানিটারি ন্যাপকিন বিনামূল্যে বিতরণের কর্মসূচি রয়েছে তাদের।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত