প্রিয় বিজ্ঞানী, স্বাস্থ্যকর্মী ও টিকাদানে সম্পৃক্ত সকলের প্রতি | hello.bdnews24.com
আমার কথা

ধী অরণী পাল (১০), ঢাকা

Published: 2022-05-08 14:39:53.0 BdST Updated: 2022-05-08 15:50:03.0 BdST

প্রিয় বিজ্ঞানী স্বাস্থ্যকর্মী ও টিকাদানে সম্পৃক্ত সকলে,

তোমরা আমার ভালোবাসা ও শুভেচ্ছা নেবে।

একটি বা দু’টি নয়, জন্মের পর এখন পর্যন্ত আমি ছয়টি টিকা টিকা নিয়েছি। কোনোটা মুখে খেয়ে আর কোনোটা ইনজেকশনের মাধ্যমে। তোমরা এই টিকাগুলো দিয়ে আমাকে অনেক রোগ থেক রক্ষা করেছ। তাই তোমাদের সবার প্রতি আমি অনেক অনেক কৃতজ্ঞ। 

আমার মা আমাদের জন্মের সময় দুটি বই পড়েছিলেন। একটি হলো, “হোয়াট টু এক্সপেক্ট হোয়েন ইউ আর এক্সপেক্টিং,” আরেকটি হলো “সন্তান প্রতি পালন”। সেখান থেকেই মা জানতে পারেন টিকার গুরুত্ব। তাছাড়া, ইউনিসেফের মত প্রতিষ্ঠানের টিকাদানের বিষয়েও সে জানতো। ফলে আমার বাবা-মা টিকা দেবার বিষয়ে সচেতন ছিলেন। তাই তারাই আমাকে নিয়ে যেতেন টিকা কেন্দ্রে।

আমি টিকা নিয়েছি সূর্যের হাসি ক্লিনিক থেকে। সেখান থেকে দেওয়া হয়েছিল টিকা কার্ড। 

এ সবকিছুই আমি শুনেছি আমার মায়ের কাছ থেকে। কিন্তু কে টিকা দিয়েছিল তার নাম আমি তো জানিই না। বাবা-মাও জানেন না।  কোথাও লেখা নেই টিকাদান কর্মীর নাম। 

নাম জানা না থাকলেও তারা যত্ন করে টিকা দিয়েছেন বলেই আমি সুরক্ষা পাচ্ছি অনেকগুলো রোগ থেকে। 

আমি যখন টিকা নিয়েছি তখন আমি কিছু বুঝতাম না। শিখিওনি কাওকে ধন্যবাদ জানানোর কথা। আমার বাবা-মা তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন কিনা তাও জানি না। কিন্তু আজ বুঝতে পারছি তারা আমার জীবনে কতটা গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। শুধু আমার জন্য নয়, এই মানুষগুলো অচেনা শিশুদের জন্য অনেক পরিশ্রম করেছেন, করছেন।  

তাই বিজ্ঞানী, টিকাদান কর্মী, স্বেচ্ছা সেবক, আমার বাবা এবং ঐ বইগুলোর লেখকদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। আমাকে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য সবাইকে জানাই ধন্যবাদ আর ভালোবাসা। 

ইতি

ধী অরণি পাল

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত