প্রতিবন্ধী শিশুদের অবহেলা নয় - hello
আমার কথা

রাইসান কবির রাহিম (১৭), কুমিল্লা

Published: 2021-05-05 00:17:26.0 BdST Updated: 2021-05-05 00:32:20.0 BdST

বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুরা জন্ম থেকেই নানা প্রতিবন্ধকতার মধ্য দিয়ে যায়।

যেখানে কোনোভাবেই এই শিশুরা দায়ী নয়। আমাদের নিজেদেরকে প্রতিবন্ধী শিশুদের জায়গায় বসিয়ে বিবেচনা করলে হয়তোবা কিছুটা আন্দাজ করতে পারি কতটা কষ্টের জীবন তাদের। এর সাথে যদি সমাজের বা আশেপাশের মানুষের অবহেলা আর কটু কথা যোগ হয় তাহলে তো জীবন আরও দুর্বিষহ হয়ে ওঠে।

আমাদের সমাজ ব্যবস্থায় প্রতিবন্ধী শিশুদেরকে অনেকটা হেয় করে অথবা নিচু চোখে দেখা হয়। তাদেরকে প্রায়ই অবহেলা করা হয়ে থাকে শুধুমাত্র প্রতিবন্ধী হওয়ার কারণে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে প্রতিবন্ধী শিশুরাও যে অনেক প্রতিভাবান হতে পারে সেটা একদমই বুঝতে চেষ্টা করি না।

প্রতিবন্ধী হওয়া সত্ত্বেও অনেক শিশুই নিজেদের মেধা আর দক্ষতার বিকাশ ঘটিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন ক্ষেত্রে। এগুলো কিন্তু আমাদের চোখের সামনেই ঘটছে। শত বাধা বিপত্তি পার করে তাদের সফলতার সংবাদ পত্রিকাতে প্রায়ই পড়ি।

সামাজিকভাবে প্রতিবন্ধীদেরকে অবহেলার চোখে দেখা হলেও আমি মনে করি এখন সময় এসেছে এ ধরনের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করার। প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয়। বরং মেধা, দক্ষতা আর সঠিক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তারাও সমাজ, দেশ ও জাতির সম্পদে পরিণত হতে পারে।

এ বিষয়ে সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টি করা যেতে পারে। কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায় অনেক প্রতিবন্ধী শিশুরা বিশেষ কোনো দক্ষতায় পারদর্শী হয়, সেক্ষেত্রে তাদের জন্য আরো উন্নত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা যেতে পারে। প্রতিবন্ধীদের সহজে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দেওয়া যেতে পারে যেন তারা দ্রুত স্বনির্ভর হতে পারে। সমাজে তাদের নিয়ে বিভিন্ন গঠনমূলক এবং সৃষ্টিশীল কার্যক্রম পরিচালনা করা যেতে পারে। এতে করে তাদের নিয়ে মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন হবে এবং তারাও নিজেদের কর্মঠ ভাববে।

প্রতিবন্ধী শিশুদের বেড়ে উঠার জন্য সুস্থ, সুন্দর পরিবেশ তৈরি করাটা জরুরি। এজন্য তাদেরকে নিয়ে চিত্তবিনোদন, খেলাধুলা ইত্যাদির আয়োজন করা যেতে পারে। প্রতিবন্ধী শিশুদেরকে ঘৃণা বা অবহেলার চোখে দেখার যে প্রবণতা সমাজে চলমান সেটি বন্ধ করার জন্য প্রচার, প্রচারণা চালানো যেতে পারে। এতে পরিবারের ভূমিকার বিকল্প নেই।

সুস্থ বিনোদন, প্রতিভা বিকাশের সঠিক এবং পর্যাপ্ত সুযোগ, বেড়ে উঠার জন্য উপযোগী পরিবেশ পেলে প্রতিবন্ধী শিশুরাও তাদের প্রতিভার স্বাক্ষর রাখতে পারবে বলে আমার মনে হয়।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত