আমার কথা

তাকিয়া মোনাও-ওয়ারা কথা (১৭), ঢাকা

Published: 2020-05-24 10:14:55.0 BdST Updated: 2020-05-24 10:16:27.0 BdST

কিশোরী বয়সে যখন আমার মধ্যে নারীসুলভ শারীরিক বৈশিষ্ট্য কেবল প্রকাশ পেতে শুরু করেছে, তখন থেকেই আমার মায়ের আমার হাঁটা নিয়ে অনেক অভিযোগ ছিল। তিনি বরাবরই বলেন আমার হাঁটা নাকি 'ভালো' না। 

তার মতে, আমার হাঁটাহাঁটি নাকি ছেলেদের মতো। তার মতামত হচ্ছে, মেয়েদের হাঁটা অন্য রকম হওয়া উচিত। আমি কীভাবে হাঁটি তার বর্ণনা করতে তিনি সবসময়ই একটা বাক্য বলতেন, আমি নাকি 'সিনা টান দিয়ে' হাঁটি।

সত্যি বলতে তখন আমি এই বাক্যটার অর্থ বুঝতাম না। এখন বুঝি। বিষয়টা হচ্ছে আমি সোজা হয়ে হাঁটি। 

আমার ছোট ভাই যখন কৈশোরে পা দিল তখন থেকে আমার মা তার হাঁটায় সমস্যা ধরতে লাগলেন। তবে তার ক্ষেত্রে সমস্যা উল্টো। সে 'সিনা টান দিয়ে' হাঁটে না। আমার মায়ের মতে, সে পুরুষ মানুষ। তার উচিত সিনা টান দিয়ে হাঁটা। সে কেনো কুজো হয়ে হাঁটে??

কী ভাবছেন, এটা আমার মায়ের গোঁড়ামি? না! আমাদের দেশ, আমাদের সমাজ ব্যবস্থা আমার মাকে এসব করতে বাধ্য করেছে। কে জানে মাকেও হয়তো ছোটবেলা এসব শুনেই বড় হতে হয়েছে। 

আমরা মেয়েরা যখন বয়ঃসন্ধিকালের নানান বাহ্যিক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাই, আমাদের সবারই তখন হাঁটাচলার ক্ষেত্রে এক ধরণের অস্বস্তি হয়। কারণ আমরা কেউই শরীরের নতুন অংশ নিয়ে জন্মগ্রহণ করি না৷ তাই হঠাৎ এই পরিবর্তন আমরা সহজে মেনে নিতে পারি না৷ ছোট থেকে লাফিয়ে দৌড়ে বেড়ানো মেয়েটাও তখন কুজো হয়ে হাঁটে এবং যেহেতু কেউ তাকে সোজা হয়ে হাঁটতে বলে না তাই ধীরে ধীরে এটাই তার অভ্যাসে পরিণত হয়। আমাদের দেশের অধিকাংশ মেয়েরা তাই কুজো হয়ে হাঁটে বলে আমার ধারণা। তাই আমার মায়েরও অনেকের মতোই ধারণা এই বাড়তি অংশ নিয়ে মেয়েদের উচিত মেরুদণ্ড নিচু করে হাঁটা। আর ছেলেরা হাঁটবে সিংহের মতো কাঁধ উঁচু করে। 

আমি আপনাকে বলছি শুনুন, আপনার সন্তান ছেলে হোক, মেয়ে হোক কিংবা তৃতীয় লিঙ্গ তাকে মেরুদণ্ড সোজা করে দাঁড়াতে এবং হাঁটতে শেখান৷ যদি কোনো মেয়ে শারীরিক পরিবর্তনের ফলে সোজা হয়ে দাঁড়াতে অস্বস্তিবোধ করে তার বোঝান যে এটা লজ্জার কোনো বিষয় নয়। তাকে বলুন, তোমাকে যেমনই দেখাক, মানুষ যেভাবেই দেখুক কিংবা যাই বলুক তুমি সবসময় মেরুদন্ড সোজা রাখবে, সোজা হয়ে হাঁটবে।

আমার হাঁটা খারাপ কিনা আমি জানি না। কেমন তাও জানি না। তবে এই 'ছেলেদের মতো হাঁটে' এই বক্তব্যটায় আমার ঘোর আপত্তি আছে। কারণ আমি বিশ্বাস করি, লিঙ্গভেদে হাঁটাহাঁটির কোনো পার্থক্য হয় না৷ এইভাবে ছেলেরা হাঁটবে, আর এইভাবে মেয়েরা- এইসব আবোল তাবোল বিশ্লেষণ আমি মানি না৷ আমি শুধু জানি, সকল মানুষ মেরুদণ্ড সোজা এবং মাথা উঁচু করে হাঁটবে। 

আপনি যখন মডেলিং বা খেলাধুলা শিখতে যাবেন, আপনি নারী হোন বা পুরুষ। আপনাকে সবার আগে যেটা শেখাবে, সেটা হচ্ছে কাঁধ সোজা করে দাঁড়ানো।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত