আমার কথা

শেখ নাসির উদ্দিন (১৬), টাঙ্গাইল

Published: 2019-05-26 13:42:56.0 BdST Updated: 2019-05-26 15:10:37.0 BdST

চলতি মৌসুমে ধানের ফলন আশাঅনুরূপ হলেও দিশেহারা কৃষক। এখন ধান ঘিরেই আলোচনা সমলোচনার ঝড় বইছে চায়ের কাপ থেকে শুরু করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে, ছড়িয়ে যাচ্ছে পত্রিকা কিংবা টেলিভিশন টক শোতেও।

পদ্মা সেতু, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, মহাসড়কগুলোও দুই লেন থেকে চার লেনে উন্নত করা হয়েছে। নিম্ন আয়ের দেশ থেকে 

উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় নাম লিখিয়েছি আমরা। উন্নয়নের মহাসড়কে হাঁটছি আমরা। এতে বদলেছে কি কৃষকের ভাগ্য? 

কতটা ক্ষোভ আর কতটা কষ্ট বুকে জমা হলে কৃষক তার সোনার ফসলে আগুন দেয়। তা হয়তো আমাদের জানা নেই ।

এবছর ধানের দাম নিম্নমুখী হওয়ায় এবং শ্রমিকের মজুরি বেশি হওয়ার কারণে টাঙ্গাইলের কালিহাতীর কৃষক  আব্দুল মালেক ও বাসাইল উপজেলার কাশিল গ্রামের নজরুল ইসলাম খান সম্প্রতি তাদের নিজের পাকা ধানক্ষেতে আগুন দিয়ে প্রতিবাদ জানান। এ জেলার মতো দেশের বিভিন্ন জেলায় কৃষকরা প্রতিবাদ জানাতে মানববন্ধন, রাস্তায় ধান ছড়িয়ে প্রতিবাদসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছেন।

এত প্রতিবাদ, মানববন্ধন করে কি লাভ হয়েছে কৃষকের? পত্রিকায় পড়লাম এই ভরা মৌসুমে টনে টনে ভারত থেকে আমদানি করা হচ্ছে চাল, ফলে বাজার নিম্নমুখী হচ্ছে।

অন্যদিকে দেশের কৃষক ধানের নায্য দাম না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ছে আর আগ্রহ হারাচ্ছে ধান চাষে। 

ফেইসবুকে দেখলাম শিক্ষক, শিক্ষার্থী, ছাত্র রাজনৈতিক সংগঠন থেকে শুরু করে একজন জেলা প্রশাসকও ক্ষেতে নেমে কৃষকের ধান কেটে দিয়েছেন। সচেতন মহলে আমার প্রশ্ন জেলা প্রশাসক ধান কাটলে কি কৃষক বাঁচবে?

গ্রামে থাকি নিজের চোখেই দেখি কৃষকের ফসল ফলানোর দৃশ্য। রোদে পোড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে যারা এত কষ্ট করেন তাদের কী এই প্রাপ্য? আর্থিক সচ্ছলতা তো দূরের কথা কেউ সম্মানও করে না কৃষককে। অনেকের কাছে তো চাষা একটা গালি! 

বলি কী কৃষককেও সঙ্গী করুন উন্নয়নের। কৃষক বাঁচলেই বাঁচবে দেশ।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত