চোখের সামনে ডুবল আমার সুনামগঞ্জ!

“সুনামগঞ্জ আবার ঘুরে দাঁড়াবে, এমনটাই চাই।"
চোখের সামনে ডুবল আমার সুনামগঞ্জ!

সুনামগঞ্জ হঠাৎ করেই এমন দুর্বিপাকে পড়বে তা আগে কখনো ভাবতেও পারিনি। বন্যার পানি কেড়ে নিয়েছে এখানকার অনেক মানুষের স্বপ্ন।

শিশুরা তো ঘরে থাকতে চায় না, বিশেষ করে গ্রামের শিশুরা কখনোই এর সাথে অভ্যস্ত নয়। কিন্তু বন্যার কারণে গ্রামের শিশুদেরও হতে হয়েছে বন্দি। পড়াশোনার পরিবেশ যেন এক নিমিষেই ধ্বংস হয়ে গেল। চোখের সামনে তলিয়ে গেল হাজার হাজার শিক্ষার্থীদের প্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। বই খাতা ভিজে নষ্ট হয়ে গেল। যারা এসএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছিল তাদের জন্য ভয়ানক এক পরিস্থিতি নিয়ে এসেছে এই দুর্যোগ।

যেখানে হেঁটে চলাফেরা করা যেত সেখানে যে নৌকায় যাতায়াত করতে হবে এটাও ছিল কল্পনার মতো। পুরো জেলা আমাদের কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল সারা দেশ থেকে। আমরা বিদ্যুৎ পাইনি, ফোন নেটওয়ার্ক পাইনি। কারো সাথে যে অনলাইনে যোগাযোগ করব সেটাও সম্ভব হচ্ছিল না।

হাসপাতাল তলিয়ে যাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে চিকিৎসা সেবা। যারা হাঁস-মুরগি পালন করেন, যারা কৃষিকাজ করেন তাদের অনেক ক্ষতি হয়েছে। কেউ কেউ হয়ত জীবনের সঞ্চয়গুলো হারিয়ে ফেলেছেন। এই অর্থনৈতিক ধাক্কা কতদিনে পুষিয়ে নেওয়া যাবে আমি জানি না। মহামারির ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আরেক বিপদ।

শিশুদের নিয়েও চিন্তিত বাবা-মায়েরা। চারদিকে থই থই পানি, সাঁতার না জানলেই ঘটে যেতে পারে বিপদ। সাপ, জোঁকসহ বিভিন্ন ক্ষতিকর পোকামাকড় ঢুকে যাচ্ছে বাসায়। এই পরিস্থিতি পুরোপুরি কাটিয়ে উঠতে পারব জানি না। সুনামগঞ্জ আবার ঘুরে দাঁড়াবে, এমনটাই চাই।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.

সর্বাধিক পঠিত

No stories found.
bdnews24-web.quintype.io