বিশ্বজুড়ে

সোয়াইব সামীহ্ পূর্ণ (১৭), ঢাকা

Published: 2016-12-24 18:52:38.0 BdST Updated: 2017-01-02 21:23:21.0 BdST

(শেষ পর্ব) বিশ্বে যা কিছু ঘটেছে বা ঘটছে তার অনেক কিছুই রয়ে যায় অজানা। সবাই সব তথ্য জানতে পারে না। যারা ইন্টারনেট বা খবরের কাগজ দেখতে বা পড়তে পারে তারা কিছু খবর জানতে পারে। তবু পৃথিবীর সব খবর, গবেষণা বা আবিষ্কার জানা প্রায় অসম্ভব। কিন্তু জানার চেষ্টা করতে তো ক্ষতি নাই!

ফিতা বাঁধবে জুতা নিজেই

'ব্যাক টু দ্য ফিউচার' সিনেমার কথা মনে আছে? সেই যে ১৯৮৫ সালে কিশোর মার্টি ম্যাকফ্লাই আর ডক্টর ডক ব্রাউন ২০১৫ সালে পৃথিবীতে আসার চেষ্টা করেছিলেন? সেই সিনেমায় আমরা স্বয়ংক্রিয় এক জুতা দেখেছিলাম, যা কিনা নিজে নিজে ফিতা বাঁধতে পারে। এমনই এক জুতা এই ২০১৬ সালেই উদ্ধাবনের ঘোষণা দিয়েছেন জার্মানির ফ্রেইভার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক।

এই জুতা নিজেই নিজের ফিতা বাঁধার পাশাপাশি পায়ের আকার অনুসারে এর আকারও বদলে নিতে পারবে। পায়ের গোড়ালি দিয়ে জুতায় একবার চাপ দিলে এর ফিতা বাঁধা হয়ে যাবে আর দুবার চাপ দিলে ফিতা খুলে যাবে। বয়স্ক মানুষের জুতা পরার বিপত্তি হ্রাস করতেই এমন উদ্ভাবন গবেষকদের।

তথ্যসূত্র-জার্নাল অব সায়েন্স   

এলিয়েনের গ্রহ সন্ধান

পৃথিবীর মতো গ্রহের তালিকায় আরও নতুন তিনটি গ্রহের নাম যুক্ত হয়েছে। তিন গ্রহের একটিতে আবার ভিনগ্রহের প্রাণি থাকতে পারে বলে জ্যোতির্বিদদের ধারণা।

আমাদের সূর্যের আকারের অর্ধেক 'ইপিআইসি ২০১৩৬৭০৬৫’ তারা। এই তারা থেকে ১৫০ আলোকবর্ষ দূরে তিনটি পৃথিবীসদৃশ গ্রহের অবস্থান বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। তাদের ধারণা, গ্রহগুলোর  বায়ুমণ্ডল হাইড্রোজেনে পূর্ণ আর এদের আকার পৃথিবীর সমান। যে তারাকে কেন্দ্র করে গ্রহগুলো আবর্তিত হচ্ছে, তার আকার সূর্যের চেয়ে কম বলে এসব গ্রহে জীবনধারণ সম্ভব এমনটি মনে করছেন গবেষকরা। আমেরিকার ইউসি বার্কলির অনার্স শিক্ষার্থী এরিক পেটিগুরা এই গ্রহগুলো আবিষ্কার করেন।

তথ্যসূত্র-ম্মিথসোনিয়ান ডটকম   

মঙ্গলে মিথেন, প্রাণের আভাস

মঙ্গল গ্রহে বছর খানেক আগে অবতরণ করে নাসার কিউরিসিটি রোভার। মঙ্গলের বুকে জৈব অণুর সন্ধান ছিল যার মূল মিশন। রোভারটি সেখানে প্রাচীন এক পাথর খোঁড়ার সময় কার্বনবাহী যৌগের উপস্থিতি টের পায়। একই সঙ্গে এটি মঙ্গলে মিথেন গ্যাসের উপস্থিতিও টের পেয়েছে। আপাতত এই টের পাওয়া নিয়েই আমাদের সন্তুষ্ট থাকতে হবে, কারণ কিউরিসিটির আর বড় ধরনের পরীক্ষা চালানোর ক্ষমতা নেই।  

নাসার গবেষকরা এই যৌগ আর গ্যাসের সন্ধানকে বেশ গুরুত্বের সঙ্গেই দেখছেন। তাদের ধারণা, রোভারটির অবতরণস্থল বহু আগে পানিপূর্ণ এক জলাশয় ছিল। সেখানে মিথেন পেলেও মিথেন কীভাবে এলো, সেটি এখনও অজানাই রয়ে গেছে। আর মিথেনের উপস্থিতিই নাকি প্রমাণ করে, মঙ্গলে প্রাণের আভাস ছিল।

তথ্যসূত্র-দ্য গার্ডিয়ান

তেলাপোকার কাছে পারমানবিক বোমা নস্যি

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জাপানের হিরোশিমা ও নাগাসাকিতে পারমানবিক বোমায় প্রায় সব প্রাণিই নিহত হলেও তেলাপোকাদের কিছু হয়নি-এমন দাবি ছিল অনেকেরই। তেলাপোকার বর্ম নাকি পারমানবিক বোমানিরোধী। এটি সত্য না মিথ্যা তা প্রমাণে লেগে পড়েন বিজ্ঞানীরা। মার্কিন বিজ্ঞানীরা তেলাপোকার শক্তি প্রমাণের জন্য তেজস্ক্রিয় পদার্থ কোবাল্টের তেজস্ক্রিয়তা তাদের উপরে প্রয়োগ করেন। এক হাজার মাত্রার রেডন ইউনিটের তেজস্ক্রিয়তা মানুষের ওপর ১০ মিনিট প্রয়োগ করা হলে তার মৃত্যু নিশ্চিত। কিন্তু তেলাপোকাদের ওপর ১ হাজার, ১০ হাজার ও ১ লাখ রেডন এককের তেজস্ক্রিয়তা নিক্ষেপ করা হয়। যেসব তেলাপোকার ওপরে নিম্নমাত্রার তেজস্ক্রিয়তা নিক্ষেপ করা হয় তার অর্ধেক এক মাস পরও বেঁচে ছিল, আর ১০ হাজার মাত্রার তেজস্ক্রিয়তা নিক্ষেপ করা তেলাপোকার মধ্যে ১০ শতাংশ বেঁচে ছিল। এই পরীক্ষা প্রমাণ করেছিল তেলাপোকা পারমানবিক বোমার আঘাতে বেঁচে যেতে পারে।

তথ্যসূত্র-ডেইলি মেইল

ধুককেতু আসলে আইসক্রিম!

কখনো ফ্রিজ থেকে আইসক্রিম বের করার পরে তাকে ভালো করে দেখেছ? একটু শক্ত, তার সঙ্গে ধোঁয়া ওড়ে, তাই না?

চমকে দেওয়ার মতো নতুন এক তথ্য দিচ্ছে নাসা। ধূমকেতুরাও নাকি আসলে ফ্রিজ থেকে বের করা আইসক্রিমেরই মহাবৈশ্বিক সংস্করণ। সম্প্রতি ইউরোপীয় স্পেস এজেন্সির রোজেট্টা খেয়াযান অবতরণ করেছে সিক্সটিসেভেনটি ধূমকেতুতে। পরীক্ষায় গবেষকরা দেখেছেন, ধূমকেতুর ওপরের আবরণ আইসক্রিমের মতোই শক্ত থাকে। কিন্তু ভেতরের অংশ ভরা থাকে নরম বরফ দিয়ে।

তথ্যসূত্র-জার্নাল অব ফিজিক্যাল কেমিস্ট্রি

এক পাথরে ৩০ হাজার হিরা

অমূল্য এক রত্নের সন্ধান মিলেছে রাশিয়ার এক খনিতে। এক পাথরের মধ্যে ৩০ হাজার ক্ষুদ্র হিরার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। রাশিয়ার উডস্কনায় হিরে খনিতে এই পাথরের দেখা মিলল। পাথরের মধ্যে আটকে থাকা হিরের সংখ্যা ৩০ হাজার হলেও পাথরটি কিন্তু বেশ বড় নয়, আকার মাত্র পাঁচ মিলিমিটার। খুদে হিরের দাম বেশ কম বলে খনি কর্তৃপক্ষ পাথরের টুকরাটিকে বিজ্ঞানীদের গবেষণার জন্য উপহার দিয়েছে।

তথ্যসূত্র-ইকোনমিক টাইমস

কোণ মেপে খেলার সূত্র

কায়দা মতো পানিতে ঢিল ছুঁড়লে ঢিলটি অনেক সময় ডুবে না গিয়ে ব্যাঙের মতো পানির ওপর লাফাতে লাফাতে সামনে চলে যায়। আমরা অনেকেই ছোটবেলায় এই খেলার সাথে পরিচিত। সেই কায়দারই নিখুঁত গাণিতিক সূত্র উদ্ভাবন করেছেন গবেষকেরা। ব্রিগহ্যাম ইয়াং বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক অধ্যাপক ট্যাড ট্র্যাসকট এই সূত্র প্রকাশ করেছেন। তার মতে, কেউ যদি হাত আর চোখের সমান্তরালে ২০ ডিগ্রি কোণে পানির ওপর ঢিল ছুঁড়তে পারে, তাহলেই তার ঢিল সর্ব্বোচ্চবার ব্যাঙের মতো লাফাবে। ঢিল যত ভারি হবে কোণের মান ততই কমাতে হবে।.

তথ্যসূত্র-ডেইলি মেইল

পাখির দাঁত কই?  

পাখির মুখে দাঁত নেই। কেন নেই?

বিজ্ঞানীরা চমকে দেওয়ার মতো এক তথ্য জানিয়েছেন। তারা বলছেন, একশ ১৬ মিলিয়ন বছর আগে পাখিদেরও দাঁত ছিল। জার্মানিতে পাওয়া আর্কেও পটেরেক্স নামের পাখির পূর্বপুরুষের জীবাশ্ম দেখে বিজ্ঞানীরা এই তথ্য জানিয়েছেন। বিবর্তনের সূত্রে পাখিরা সরীসৃপ থেকে রুপান্তরিত। সরীসৃপদের দাঁত আছে, কিন্তু পাখিদের নেই। এই না থাকার কারণ অনুসন্ধানে গবেষকরা জানিয়েছেন, ছয়টি জিনের জন্য পাখির দাঁত তৈরি হতো। সেই জিনগুলো সরীসৃপ থেকে পাখিরা পেয়েছিল। ধীরে ধীরে সেই জিনগুলো পাখিদের শরীরে কার্যকারিতা হারাতে শুরু করে। আর সেই ধারায়, এখনকার পাখিদের দাঁত নেই। পাখির মতোই নাকি কচ্ছপ ও তিমিও একই কারণে দাঁতবিহীন।

তথ্যসূত্র-ওয়াশিংটন পোস্ট

আগের মানুষই বেশি বুদ্ধিমান

এক প্রাচীন শামুকের ফসিল মানব সভ্যতার ইতিহাস বদলে দেওয়ার চেষ্টা করছে। পাঁচ লাখ ৪০ হাজার বছরের পুরোনো শামুকের কাটা অংশ দেখেই ভয় পাচ্ছেন এখনকার ফসিলবিদরা। জাভা অঞ্চলে পাওয়া এক শামুকের খোলসের কাটা অংশ দেখে সেই সময়কার মানুষের বুদ্ধিমত্তার মাত্রা অবাক করে দিচ্ছে গবেষকদের। তখনকার মানুষ ছিল হোমো ইরেকটাস গোত্রের। শামুকের নিখুঁত কাটা অংশ দেখে তখন মানুষের পাথর ব্যবহারের কৌশল বোঝার চেষ্টা করেছেন গবেষকরা। তারা এরই মধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন, শামুকের কাটা অংশ দেখে বোঝা যাচ্ছে, হোমো স্যাপিয়েন্সের চেয়ে হোমো ইরেকটাসরাই বেশি বুদ্ধিমান ছিল।

তথ্যসূত্র-সায়েন্টিফিক আমেরিকান

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত
  • আনুমানিক দুইশ বছরের পুরনো আমগাছ

    ঠাকুরগাঁও জেলায় প্রায় দুই বিঘা জুড়ে আছে একটি আমগাছ। দেখলে মনে হয় বিরাট এক আম বাগান। কিন্তু অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, এই মহীরূহের বয়স আনুমানিক দুইশ বছরের কম নয়।

  • ধিক্কার: বঙ্গবন্ধু হত্যার খবরকে অবহেলা করেছিল যারা

    শুধু রাজনীতি নয়, সংবাদপত্রের কাজের সঙ্গেও বঙ্গবন্ধুর সম্পৃক্ততা ছিলো। জীবনের কর্মযজ্ঞে কখনও পত্রিকার মালিক, কখনও সাংবাদিক, কখনও পূর্ব পাকিস্তান প্রতিনিধি, কখনও বা পরিবেশক ছিলেন তিনি। দরকারে হকারিও করেছেন।

  • দৃষ্টিহীনতা দমাতে পারেনি রফিকুলকে

    কুড়িগ্রামের রফিকুল ইসলাম দৃষ্টি প্রতিবন্ধী হয়েও তার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর আবর্জনা রিসাইকেল করে তিনি নিত্য ব্যবহারের জিনিস তৈরি করে বাজারজাত করছেন।