খবরাখবর

আমিনুর রহমান হৃদয় (১৬), ঠাকুরগাঁও

Published: 2016-02-15 13:47:39.0 BdST Updated: 2017-07-20 20:34:24.0 BdST

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার অধিকাংশ মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে কোনো ধারণা নেই।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ শ্রেণিকক্ষে এসব সম্পর্কে কখনোই আলোচনা করে না শিক্ষকরা।

সম্প্রতি সরেজমিনে উপজেলার কয়েকটি মাদ্রাসায় গিয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে হ্যালো। অধিকাংশ শিক্ষার্থীই জানে না ভাষা আন্দোলন বা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস।

ভেবড়া ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসা, পীরডাংগী এস আই সিনিয়র ফাজিল (বিএ), গুয়াগাঁও মহিলা দাখিল মাদ্রাসাসহ বেশ কয়েকটি মাদ্রাসা ঘুরে দেখা যায় একই চিত্র।

ভেবড়া ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসায় অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া এক শিক্ষার্থী জানায়, ক্লাসে স্যাররা শুধু বই পড়ায়। বইয়ের বাইরে কিছুই পড়ায় না।

১৬ ডিসেম্বর কী দিবস জানতে চাইলে ওই শিক্ষার্থী কোনো উত্তর দিতে পারেনি।

প্রায় একই রকম উত্তর পাওয়া যায় একই ক্লাসে পড়ুয়া আরও কয়েকজনের কাছে।

কথা বলে জানা যায়, ঐতিহাসিক কোনো দিবস উদযাপনে বিশেষ কোনো আয়োজন হয় না মাদ্রাসায়। বিভিন্ন দিবস উপলক্ষে খেলাধুলার আয়োজনও করা হয় না।

পীরডাংগী এস আই সিনিয়র ফাজিল (বিএ) মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরাও জানালো একই কথা।

মাদ্রাসার দশম শ্রেণি পড়ুয়া এক শিক্ষার্থীকে ২১ ফেব্রুয়ারি কী দিবস প্রশ্ন করা হলে অ জানায় বিজয় দিবস।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, মুক্তিযুদ্ধ বা ভাষা আন্দোলন সম্পর্কে তাদের কোনো ধারণা নেই।

জানায়, পাকিস্তানকে পরাজিত করে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে এটাই শুধু জানে তারা।

এ বিষয়ে ভেবড়া ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার সুপার রুহুল আমীন বলেন, "ক্লাসে পাঠ্যবইয়ের বাইরে পড়ানোর বিষয়ে সরকারি কোনো দিক নির্দেশনা নেই। তবুও মাঝে মাঝে ক্লাসে আলোচনা করা হয়।"

একই কথা জানান, পীরডাংগী এস আই সিনিয়র ফাজিল(বিএ) মাদ্রাসা সুপার মোহাম্মদ আবদুল্লাহ।

এ বিষয়ে কথা হয় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ইব্রাহীম খান এর সঙ্গে।

তিনি বলেন, "মাদ্রাসার শিক্ষকরাই তো মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী না। তারা কি করে শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানাবে।

"অনেক মাদ্রাসায় আমি পতাকা উড়তেও দেখি না। এটাই বাস্তবতা।"

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার তোফাজ্জল হোসেন বলেন, "আমি বিভিন্ন সেমিনারে মাদ্রাসার শিক্ষকদের ক্লাসে শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে ধারণা দেওয়ার জন্য বলেছি।"

একই কথা জানালেন ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক মুকেশ চন্দ্র রায়।

তিনি বলেন, "আমি বিভিন্ন স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজ পরিদর্শনের সময় শিক্ষকদের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে জানাতে বলি।"

এখন থেকে বিষয়টি আরও ভালোভাবে দেখবেন বলে জানান তিনি।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত
  • আনুমানিক দুইশ বছরের পুরনো আমগাছ

    ঠাকুরগাঁও জেলায় প্রায় দুই বিঘা জুড়ে আছে একটি আমগাছ। দেখলে মনে হয় বিরাট এক আম বাগান। কিন্তু অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, এই মহীরূহের বয়স আনুমানিক দুইশ বছরের কম নয়।

  • ধিক্কার: বঙ্গবন্ধু হত্যার খবরকে অবহেলা করেছিল যারা

    শুধু রাজনীতি নয়, সংবাদপত্রের কাজের সঙ্গেও বঙ্গবন্ধুর সম্পৃক্ততা ছিলো। জীবনের কর্মযজ্ঞে কখনও পত্রিকার মালিক, কখনও সাংবাদিক, কখনও পূর্ব পাকিস্তান প্রতিনিধি, কখনও বা পরিবেশক ছিলেন তিনি। দরকারে হকারিও করেছেন।

  • দৃষ্টিহীনতা দমাতে পারেনি রফিকুলকে

    কুড়িগ্রামের রফিকুল ইসলাম দৃষ্টি প্রতিবন্ধী হয়েও তার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর আবর্জনা রিসাইকেল করে তিনি নিত্য ব্যবহারের জিনিস তৈরি করে বাজারজাত করছেন।