খবরাখবর

আমিনুর রহমান হৃদয় (১৭), ঠাকুরগাঁও

Published: 2017-07-01 19:46:25.0 BdST

স্কুলের গণ্ডি পেরিয়ে আসা নবীন শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছিল ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণ। 

শনিবার সারাদেশের মতো পীরগঞ্জ সরকারি কলেজেও একাদশ শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাস শুরু হয়। 

প্রথমদিনে নবীন শিক্ষার্থীদের রজনীগন্ধা ফুল দিয়ে বরণ করে নেন কলেজ অধ্যক্ষ।

সরেজমিনে দেখা যায়, প্রথমদিনে কলেজে এসে শিক্ষার্থীরা দারুণ উচ্ছ্বসিত। ক্লাস শেষে কলেজ মাঠে দলবেঁধে আড্ডা দিতেও দেখা যায় অনেককে।

এছাড়াও ক্লাসগুলোতে ছিল শিক্ষার্থীদের শতভাগ উপস্থিতি। অনেকে বেঞ্চে বসার জায়গা না পেলেও দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে শুনছিল প্রথম দিনে শিক্ষকের উপদেশ।

বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখার নবীন শিক্ষার্থীদের সাথে কথা হয় হ্যালোর। 

বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হওয়া পিয়ানা, বৃন্তি, বাঁধন ও বৃষ্টি নামে চার শিক্ষার্থী জানায় কলেজের প্রথমদিনের অনুভূতির কথা। 

এই শিক্ষার্থীরা পীরগঞ্জ সরকারি বণিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসিতে উত্তীর্ণ হয়েছে এ বছর। 

পিয়ানা বলে, ‘স্কুলের ক্যাম্পাস ছোট ছিল। কিন্তু কলেজ এত বড় যে দেখেই ভালো লাগছে। আনন্দ হচ্ছে এই ভেবে যে, এখন আমি কলেজের ছাত্রী।’

বৃন্তি, বাঁধন ও বৃষ্টিরও কলেজে প্রথম দিন ক্লাস করেই খুব ভালো লেগেছে। কয়েকজন স্যারের ক্লাস খুব ভালো লেগেছে বলেও জানায় ওরা।  

ফাহিম ফায়সাল নামে আরেক শিক্ষার্থী বলে, ‘নতুন ক্লাসে নতুন কয়েকজন বন্ধুর সাথে পরিচিত হলাম। নিজেকে বেশ বড় বড় লাগছে।’

বান্দিগর গ্রাম থেকে ১৫ কিলোমিটার পথ সাইকেল চালিয়ে কলেজে এসেছে মানবিক বিভাগে ভর্তি হওয়া মোহাম্মদ সেলিম।

ও বলে, ‘সকালেই বাড়ি থেকে সাইকেল নিয়ে বেরিয়েছিলাম। সকাল ৯টায় কলেজে প্রথম ক্লাস ছিল। কলেজ অধ্যক্ষ ফুল দিয়ে প্রথমে আমাদের শুভেচ্ছা জানান। সত্যিই অসাধারণ লাগছে! কলেজে এসে ভালো লাগছে খুব।’

কোষা মন্ডলপাড়া গ্রামের পপি রাণীকে সকালে তার ভাই প্রথমদিন কলেজে পৌঁছে দিয়েছেন। ক্লাস শেষে বারান্দায় একা দাঁড়িয়ে থাকা পপি বলে, ‘প্রথমদিন তো! একটু ভয় ভয় লাগছিল। ক্লাসে আমার একজন বান্ধবী ছাড়া সবাই অপরিচিত।’  

প্রথমদিনেই বেশ কয়েকজন নতুন বন্ধু পেয়েছে রণিতা রায়। 

ও বলে, ‘ক্লাসে সবাই অপরিচিত। নাম ও বাড়ির ঠিকানা জেনে একটু বন্ধুত্ব করার চেষ্টা করেছি।’

পীরগঞ্জ সরকারি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম জানান, একাদশ শ্রেণিতে এবার বিজ্ঞান শাখায় তিনশ ৩৭জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে। আসন খালি রয়েছে ১৩টি। মানবিক বিভাগে দুশো ৫৪জন শিক্ষার্থী, আসন খালি আছে ৪৬টি আর ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে দুশো ৫৩জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে এবং আসন খালি আছে ২২টি।

শিক্ষার্থীদের সাথে পরিচিতি ও বরণ করে নেওয়া পর্বে কলেজ অধ্যক্ষ সামসুল কালাম আজাদ বলেন, ‘তোমাদের নিয়মিত কলেজে এসে ক্লাস করতে হবে। এইচএসসিতে সময় খুব কম। অল্প সময়ে ভালো ভাবে প্রস্তুতি নেওয়ার ক্ষেত্রে কলেজে নিয়মিত ক্লাস করা ছাড়া বিকল্প নেই।’

এরপর তিনি শিক্ষার্থীদের সুন্দর জীবন কামনা করে বলেন, ‘তোমরা যে স্বপ্ন নিয়ে কলেজে এসেছ সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য তোমাদেরই উদ্যমী হতে হবে।’

Print Friendly and PDF
সর্বাধিক পঠিত