আমার কথা

শেখ মো. ফাইয়াজ ফেরদৌস (১৪), সিলেট

Published: 2017-08-21 20:26:10.0 BdST Updated: 2017-08-21 20:26:10.0 BdST

সংগৃহীত
আমাদের সবচেয়ে আপনজন, সবচেয়ে বড় বন্ধু, আমাদের  মা-বাবা। আর সাধারণত বাবা-মার সাথে সন্তানের সম্পর্ক হয় খুব মধুর। এর উল্টোটাও হয় কখনও, তবে সেটা স্বাভাবিক নয়। আজ সেই উল্টো কথাটাই বলব।

সন্তান যখন ছোট ও অসহায় থাকে তখন মা-বাবাকে প্রয়োজন হয় সব চেয়ে বেশি। কিন্তু আমাদের দেশে এমন অনেক মা-বাবা রয়েছেন সন্তানের সাথে তারা স্বাভাবিক আচরণ করেন না বা করতে জানেন না।।

তারা তাদের নিজের সন্তানদের সাথেই দুই রকম আচরণ করেন। তারা কন্যা সন্তানকে সংসারের বোঝা মনে করেন আর ছেলেদের গুরুত্ব দেন বেশি। এমন কি খাওয়া-পড়া, শিক্ষা-দীক্ষা সবখানেই এই ভেদ তৈরি করেন। 

মা-বাবা মনে করেন, ছেলেরা বড় হয়ে তাদের দেখাশোনা করবে, মেয়েরা করবে না। কারণ তারা বিয়ে হয়ে অন্যবাড়ি চলে যাবে।

কিন্তু আমরা স্কুলে শিখেছি, টেলিভিশনে, মীনা কার্টুন দেখে বুঝতে শিখেছি, এরকম আচরণ ঠিক নয়। ছেলে হোক মেয়ে হোক সব সন্তানই সমান। ঠিক মতো গড়ে তুলতে পারলে দুজনই সমান সম্ভাবনাময়।  

আমরা দেখতেই পাচ্ছি, আমাদের দেশের প্রধান মন্ত্রী, স্পিকার, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রীদের অনেকেই মেয়ে।

আমাদের দেশের মেয়েরা পাহাড় জয় করছে; খেলায় সোনা, রূপা জিতছে; বিমান চালাচ্ছে। কোনো দিক থেকে তারা পিছিয়ে নেই। তাই বাবা-মার এই বৈষম্যমূলক আচরণ সত্যি খুব কষ্টের।

তবে ধীরে ধীরে এই বৈষম্য কমে আসছে। মানুষ অনেক সচেতন হয়েছে। শিক্ষিত মানুষ এরকম করেন না। তাই আমার মতে, এই সংকটের মূলে রয়েছে দারিদ্র্য আর অশিক্ষা।

অনেক মা-বাবাই জানেন না, শিশু অধিকারের কথা। রাষ্ট্রেরও অধিকার নাই কাউকে অধিকার বঞ্চিত করার। এমন কি শিশুকেও।

Print Friendly and PDF

সর্বাধিক পঠিত