‘মেয়ে হয়ে পৃথিবীতে আসাটাই ভুল,’ এরকম আক্ষেপ করতে শোনা যায় বা লেখায় পড়ে থাকি। ফেইসবুকেও অনেকে খেদ করে লিখে থাকেন এরকম মন্তব্য।

ধর্মে নয় মানুষের পরিচয় মনুষ্যত্বে 

শৈশব থেকেই শিখেছি মানুষকে মনুষ্যত্বের বিচারে সম্মান করতে, ধর্ম, কুল, গোত্র বা  গাত্রবর্ণের বিচারে নয়।

আমার লেখার প্রিয়তম পাঠক আর পড়েন না

বাবা দিবস চলে গেল দুদিন আগেই। কিন্তু আমার জীবনের সবগুলো দিনই বাবা আমাকে ঘিরে রাখেন। কারণ বাবা আমার কাছে শুধুই স্মৃতি!

প্রবাসী বাবা ভালোবাসা নিও

আমার প্রিয় মানুষ আমার মা তারপর বাবা। মা বেশি প্রিয় কারণ তিনি আমাকে শাসন করেন কম আদর করেন বেশি। তবু বাবাকেই বলতে পারি, ভালোবাসি বাবা। কারণ তিনি রয়েছেন দূরদেশে।

আমার কলেজ স্মৃতি

আমি যে বছর কলেজে ভর্তি হই সে বছরই শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রথম অনলাইনের মাধ্যমে কলেজ ভর্তি প্রক্রিয়া চালু করে। অনেকে ভোগান্তি বেশি হয়েছে বলে দাবি জানালেও, আমি ততটা ভোগান্তির সম্মুখীন হই। পছন্দের প্রতিষ্ঠান সরকারি বিজ্ঞান কলেজে পড়ার সুযোগ হয়েছিল আমার।

‘আমি মন ভেজাব ঢেউয়ের মেলায়’ (প্রথম পর্ব)

গান শুনতে শুনতে গণিতের নানান রকম ইকুয়েশন মেলানো আমার বরাবরের অভ্যাস। যে গানটি শুনতাম প্রায়ই, মাও রান্নাঘর থেকে গলা মেলাতেন। ভালো লাগত আমার। কারণ বাড়ি জুড়েই ছিল ভালো লাগার আবহ।

‘আমি মন ভেজাব ঢেউয়ের মেলায়’ (দ্বিতীয় পর্ব)

নাফ নদীর দু’ধার জুড়ে সবুজ আর পাহাড় মিলেমিশে একাকার। একপাশের পাহাড় সবুজ, বেশি উজ্জ্বল আর স্পষ্ট দেখাচ্ছিল। উজ্জ্বল ও স্পষ্ট দিকটা বাংলাদেশের অংশ। আর অস্পষ্ট দিকটা মিয়ানমারের মধ্যে পড়েছে।

‘আমি মন ভেজাব ঢেউয়ের মেলায়’ (শেষ পর্ব)

আমাদের দলটি যে কটেজ পেয়েছিল তা ছিল অসাধারণ। কটেজের ছোট্ট উঠোনে দাঁড়ালেই চোখে পড়ে সমুদ্র সৈকত। আর এক মুহূর্তও অপেক্ষা করতে পারি না আমরা। এক দৌড়ে ছুটে যাই সৈকতে। আগে সমুদ্রস্নান, তারপর অন্য কিছু। সমুদ্রের সাথে নিজেকে মিলিয়ে দেওয়া। আর তারপর একদৃষ্টে তাকিয়ে থাকা নীল-জল-দিগন্তের দিকে, হালকা চালের ঢেউকে অভ্যর্থনা জানানো।

‘প্রত্যেকে আমরা পরের তরে’

প্রকৃতিতে সবকিছুই অন্যের কল্যাণে সৃষ্টি। শুধু মানুষ এর ব্যতিক্রম। কিছু ব্যতিক্রমী মানুষ ছাড়া আর সবাই আত্মকেন্দ্রিক। কিন্তু শুধু নিজেকে সুখী করতে চাওয়ায় কোনো কল্যাণ নাই।

পরিশ্রমেই ফল

ছোট থেকেই বাবার মুখে শুনে এসেছি,‘পরিশ্রম করলে তার ফল পাওয়া যায়।’

রাজা হতাম যদি!

দ্বিতীয় বারের মতো ঢাকা গেলাম চিকিৎসা করাতে। বাড়ি ফেরার দিন ঘুরে এলাম বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরে। শাহবাগ থানার পাশে এই জাদুঘরে বেড়িয়ে এসে মন ভরে গেল।